অর্থের অভাবে গৃহকর্মী রাখতে পারছেন না ব্রিটেনের প্রধানমন্ত্রী!

ডেস্ক : ব্রিটেনের প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসনের কয়েকজন বন্ধু সংবাদমাধ্যম নিউইয়র্ক টাইমসকে জানিয়েছে যে, প্রধানমন্ত্রী বরিসের বেতন কমে যাওয়ার কারণে গৃহকর্মী রাখতে পারবেন কিনা তা নিয়ে চিন্তিত ব্রিটেনের প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসন। বন্ধুরা জানিয়েছেন, এখন বরিসের কোনো গৃহকর্মী নেই। শুধু একজন পরিচ্ছন্নতাকর্মী রয়েছেন। কয়েক মাস আগে আবার বাবা হওয়ায় এখন অন্তত একজন আয়ার প্রয়োজন বোধ করছেন তিনি। কিন্তু তার বর্তমান বেতনে আয়া রাখা সম্ভব হবে না। খবর ইন্ডিপেন্ডেন্টের।বরিসের আরেকজন সহযোগী দ্য টাইমস পত্রিকাকে বলেছেন, ব্রিটেনের আগের অন্যান্য প্রধানমন্ত্রীদের মতো বরিসও খুব খারাপ সেবা পেয়ে আসছেন।
বরিসের বন্ধুরা জানান, বরিসের বর্তমানে কোনও গৃহকর্মী নেই। বর্তমানে তার শুধু বাড়িতে একজন পরিচ্ছন্নতাকর্মী রয়েছে। এখন তিনি নিজ ফ্ল্যাটে আটকে আছেন। ডাউনিং স্ট্রিট থাকার মতো সুন্দর জায়গা নয় বলে উল্লেখ করেন তারা। ডাউনিং স্ট্রিট এলিসি বা হোয়াইট হাউসের মতো নয়। যেখানে চাইলেই অনেক কিছু থেকে সরে থাকা যায়। কারণ সেগুলো অনেক বড় পরিসরের। বরিস বা কেরি গোলাপ বাগানে যেতে চাইলেও তাদের অফিসের মধ্য দিয়ে যেতে হয় বলে জানা গেছে।প্রধানমন্ত্রী হিসেবে বছরে প্রায় দেড় লাখ পাউন্ড বেতন পেয়ে আসছিলেন বরিস। সম্প্রতি এই বেতনের উল্লেখযোগ্য অংশ কমানো হয়েছে।জনসন তার ছয় সন্তানের মধ্যে চারজনকে পড়াশোনার জন্য আর্থিকভাবে সহায়তা দেয় বলেও জানায় তার বন্ধুরা। ব্রিটেনের প্রধানমন্ত্রী হওয়ার আগে দ্য ডেইলি টেলিগ্রাফের সর্বোচ্চ সম্মানির কলাম লেখক ছিলেন বরিস জনসন। লেখালেখি করে, বক্তব্য দিয়ে বড় অংকের অর্থ আয় করতেন তিনি। এসব থেকে তিনি বছরে সাড়ে তিন লাখ পাউন্ডের বেশি আয় করতেন বলে জানা গেছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *