ঠাকুরগাঁওয়ে এগার বছর ধরে কোটি টাকার টেন্ডারে একই ব্যক্তি

ঠাকুরগাঁও প্রতিনিধি: কৃষি উন্নয়ন কর্পোরেশন বিএডিসি’র ঠাকুরগাঁও অফিসের গম, ধান ও ভুট্টা বীজ পরিবহনে টেন্ডারে ১৮ টি শিডিউল বিক্রি হলেও জমা পড়েছে মাত্র ৩টি। অভিযোগ উঠেছে একজন ঠিকাদার কাজ বাগিয়ে নিতে অন্যান্য ঠিকাদারদের শিডিউল ফেলতে বাঁধা দেয়।
বাংলাদেশ কৃষি উন্নয়ন কর্পোরেশন (বিএসডিসি) শিবগঞ্জ কেন্দ্রের ধান ,গম ও ভুট্টা বীজ পরিবহনে ১ কোটি টাকার টেন্ডার আহবান করা হয়। মালামাল পরিবহন ঠিকাদার নিয়োগে দরপত্র আহবানের বিপরীতে ১৮টি দরপত্র বিক্রি হয়।কাজের ঠিকাদার নিয়োগে তিনটি স্থানে শিডিউল ফেলার ব্যবস্থা ছিল।
মঙ্গলবার সকাল ৯টা থেকে বেলা ১২টা পর্যন্ত শিডিউল জমা দানের জন্য সময় বেঁধে দেওয়া হয়।কিন্তু নির্ধারিত সময়ে শিডিউল জমা পড়েছে মাত্র ৩টি।
অভিযোগ উঠেছে, পূর্বের ঠিকাদার এবারও ওই কাজ পেতে মরিয়া হয়ে উঠে এব্ং একটি সন্ত্রাসী গ্রুপের পাহারার কারণে কোন ঠিকাদারই দরপত্র বাক্সে শিডিউল ফেলতে পারেনি।
মাহাবুব আলম, মোস্তফা কামাল, রবিন্দ্র নাথসহ বেশ কয়েকজন ঠিকাদার অভিযোগ করে বলেন, একজন ঠিকাদার কাজ বাগিয়ে নিতে একটি সন্ত্রাসী বাহিনীকে হাতে করে পাহারার ব্যবস্থা করে।এ অবস্থায় ভয়ে দুপুর পর্যন্ত কোন ঠিকাদার শিডিউল ফেলা যায়নি। সিন্ডিকেট চক্রের ভয়ে তারা বাক্সপর্যন্ত যাওয়ার সাহস পাননি।
তারা আরো বলেন,প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সারাদেশে যখন টেন্ডার ও দুর্নীতি বন্ধ করার জোর চেষ্টা চালাচ্ছেন তখন কতিপয় কর্মকর্তার যোগসাজসে ঠাকুরগাঁও শিবগঞ্জ বিএডিসিতে টেন্ডারবাজি এখনো বন্ধ হয়নি। গত ১১ বছর ধরে এভাবে কাজ বাগিয়ে নিচ্ছেন একজন ঠিকাদার।
এ ব্যাপারে বিএডিসি শিবগঞ্জ কেন্দ্রের উপ-পরিচালক (বীজ) তাজুল ইসলাম ভুঞা বলেন, শিডিউল ফেলতে পারেনি এমন অভিযোগ পাওয়া যায়নি। ১৮টি দরপত্র বিক্রি হলেও শেষ সময় পর্যন্ত শিডিউল জমা পড়েছে মাত্র ৩টি। পুলিশ প্রশাসন উপস্থিত ছিল। কেউ যদি শিডিউল ফেলতে না পারে এর দায় তিনি নেবেন না বলে জানান।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *