এ বছর কেন্দ্রীয়ভাবে হচ্ছে না প্রাথমিক সমাপনী: দেয়া হবে না মেধাবৃত্তি

নিজস্ব প্রতিবেদক:

এ বছর কেন্দ্রীয়ভাবে প্রাথমিক সমাপনী পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হচ্ছে না। এ তথ্য জানিয়েছে প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়। নিজ নিজ স্কুলে মূল্যায়নের নির্দেশ দিয়েছে মন্ত্রণালয়।মঙ্গলবার (২৫ আগস্ট) সচিবালয়ে এক ব্রিফিংয়ে এ তথ্য জানান প্রাথমিক ও গণশিক্ষা প্রতিমন্ত্রী জাকির হোসেন। তিনি বলেন, সার্বিক পরিস্থিতি বিবেচনা করে এবার প্রাথমিক সমাপনী ও ইবতেদায়ি সমাপনী পরীক্ষা না নেয়ার প্রস্তাবে প্রধানমন্ত্রী সম্মতি জ্ঞাপন করেছেন। এবার স্কুলে বার্ষিক পরীক্ষা নেব।

এর আগে গত ১৯ আগস্ট চলতি বছরের প্রাথমিক ও ইবতেদায়ি সমাপনী পরীক্ষা বাতিলের প্রস্তাব দেয় প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়। প্রাথমিক ও গণশিক্ষা প্রতিমন্ত্রী জাকির হোসেন এবং মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র সচিব আকরাম-আল-হোসেনের স্বাক্ষর শেষে এ সংক্রান্ত সারসংক্ষেপ প্রধানমন্ত্রীর দপ্তরে পাঠানো হয়।

প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়ের জ্যেষ্ঠ সচিব আকরাম আল হোসেন জানান, স্কুল খোলা সম্ভব হলে নিজ নিজ স্কুল ও মাদরাসা পরীক্ষা নিয়ে শিক্ষার্থীদের ষষ্ঠ শ্রেণিতে উত্তীর্ণ করাতে পারবে। এ ক্ষেত্রে প্রশ্নপত্র স্ব স্ব প্রতিষ্ঠান করবে। তবে স্বাস্থ্যবিধি মেনে ওই মূল্যায়ন পরীক্ষা নিতে হবে।

এদিকে এইচএসসি, জেএসসি-জেডিসি পরীক্ষা এবং স্কুল-কলেজ খুলে দেয়ার বিষয়ে এখনও কোনো সিদ্ধান্ত হয়নি।

প্রসঙ্গত দেশে করোনাভাইরাসের প্রাদুর্ভাব বাড়তে থাকায় গত ১৭ মার্চ থেকে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানগুলো বন্ধ রয়েছে, যা ৩১ আগস্ট পর্যন্ত বাড়ানো হয়েছে। ফলে এ বছরের পাবলিক পরীক্ষা হবে কিনা তা নিয়ে সংশয়ের সৃষ্টি হয়।

পরীক্ষা না হওয়ায় এ বছর মেধাবৃত্তি দেয়া হবে না।

বিদ্যালয় খুললে স্বাস্থ্যবিধি মেনে তা কীভাবে চলবে, সে বিষয়েও একগুচ্ছ পরিকল্পনা তৈরি করছে প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়।সেখানে শিক্ষক-শিক্ষার্থীদের মুখে মাস্ক পরা, হাত পরিষ্কার, থার্মোমিটার ব্যবহার বাধ্যতামূলক করা হবে। সবাইকে সেসব মেনে চলতে হবে। শিক্ষার্থীদের সুরক্ষায় স্বাস্থ্য নিরাপত্তামূলক এমন ৫০টির বেশি নির্দেশনা তৈরি করা হয়েছে। এসব বিষয়ে প্রস্তাব প্রধানমন্ত্রীর কাছে পাঠানো হয়েছিল ১৮ আগস্ট। প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়ের সেই প্রস্তাবে সম্মতি দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *