শেরপুরে বিএনপির দলীয় কার্যালয়ে যুবদলের দুই গ্রুপে হাতাহাতি

স্টাফরিপোর্টার:
বগুড়ার শেরপুর পৌর শহরের খেজুরতলা এলাকায় বিএনপির দলীয় কার্যালয়ে গতকাল শনিবার দুপুরে যুবদলের সাংগঠনিক আলোচনা চলাকালে যুবদলের দুই গ্রুপের মধ্যে হাতাহাতির ঘটনা ঘটেছে।
জানা যায়, কেন্দ্রীয় যুবদলের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ও রাজশাহী বিভাগীয় দায়িত্বপ্রাপ্ত ওবায়দুল রহমান সুইট দলের গতিশীলতা ফিরিয়ে আন্তে গতকাল শনিবার বেলা সাড়ে ১১টার দিকে শেরপুর পৌর শহরের খেজুরতলা দলীয় কার্যালয়ে এক সাংগঠনিক আলোচনা সভায় উপস্থিত হন। মোস্তাফিজার রহমান নিলু’র সভাপতিত্বে এ সময় উপজেলা বিএনপির আহবায়ক কমিটির আহবায়ক আলহাজ¦ শফিকুল আলম তোতা, সদস্য পিয়ার হোসেন পিয়ার, সাবেক মেয়র স্বাধীন কুমার কুন্ডু, রফিকুল ইসলাম মিন্টু, শহর বিএনপির আহবায়ক কমিটির সদস্য সচিব ফিরোজ আহমেদ জুয়েল ও অনান্য নেতারা উপস্থিত ছিলেন। আলোচনা সভা চলাকালীন দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে সাবেক পৌর মেয়র ও বিএনপি নেতা স্বাধীন কুমার কুন্ড’ুর বক্তব্য নিয়ে ওই সভায় যুবদলের ত্যাগী নেতাকর্মীদের সাথে বাকবিতন্ড শুরু হয় এবং এক পর্যায় উভয়ের মধ্যে হাতাহাতি ও চেয়ার ভাংচুরের ঘটনা ঘটে। এ সময় উপস্থিত যুবদলের প্রায় ৭-৮ জন নেতা কর্মী আহত হন।
শহর ছাত্রদলের সিনিয়র সহ সভাপতি শহিদুল ইসলাম বলেন, বিএনপি নেতা ও সাবেক মেয়র স্বাধীন কুমার কুন্ডু যুবদলের ত্যাগী নেতাদের কুটুক্তিমুলক কথা বলায় উভয় পক্ষের মধ্যে তর্কবিতর্কের এক পর্যায় হাতাহাতি হয়।
এ বিষয়ে উপজেলা ছাত্রদলের সাবেক নেতা তরিকুল ইসলাম সম্্রাট বলেন, ত্যাগী নেতাদের বাদ দিয়ে কিছু স্বার্থণেষী ব্যক্তি, বিশেষ হাইব্রীডদের মূলায়ন করা নিয়ে প্রতিপক্ষ আমাদের উপর হামলা করে।
বিএনপি নেতা ও সাবেক মেয়র স্বাধীন কুমার কুন্ডু বলেন, যুবদলের আলোচনা সভায় যে কেউ একজন যুবদল নেতা বিএনপি নেতাদের কুটুক্তির প্রতিবাদ করায় একটু বাকবিতন্ডা হয়েছে।
কেন্দ্রীয় যুবদলের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল রহমান সুইট বলেন, আমাদের আলোচনা সভায় সরকারের এজেন্ডা বাস্তবায়ন করতে কতিপয় উশৃংখল ছেলেপেলেরা দলীয় কার্যালয়ে ঢুকে বিশৃংখলা সৃস্টি করলে আমাদের দু’জন নেতা তাদেরকে বিএনপি’র অফিস থেকে বের করে দেয়।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *