স্ত্রীকে তালাক নোটিস দেয়ায় হুমকি! থানায় অভিযোগ স্বামীর!

আবু বকর সিদ্দিক:
বগুড়ার শেরপুরে স্ত্রীকে তালাক নোটিস দেয়ায় স্বামীকে বিভিন্ন হুমকি ও ভয়ভীতি প্রদর্শনের অভিযোগ পাওয়া গেছে। এ ঘটনায় বৃহস্পতিবার (৯জুলাই) সন্ধায় শেরপুর থানায় স্ত্রীসহ ৪ জনের বিরুদ্ধে অভিযোগ দায়ের করেছেন স্বামী মো: রফিকুল ইসলাম। রফিকুল ইসলাম শাহবন্দেগী ইউনিয়নের দড়িমুকুন্দ গ্রামের মো: মকবুল হোসেনের ছেলে। অভিযুক্তরা হলেন, আন্দিকুমড়া গ্রামের মৃত লুৎফর রহমানের মেয়ে মোছা: রেহেনা খাতুন (২৬) তার দুই ভাই যথাক্রমে- মো: আল-আমিন (২৮) ও মো: কালাম (২৫) এবং মো: রাহাদ আলী (৫৫) সহ অজ্ঞাত ২/৩ জন।
অভিযোগ সুত্রে জানা গেছে, তেরো বছর আগে উপজেলার আন্দিকুমড়া গ্রামের মৃত লুৎফর রহমানের কন্যা মোছা: রেহেনা খাতুন (২৬) কে বিয়ে করেন রফিকুল ইসলাম। এরই মধ্যে গত পাঁচ মাস আগে পারিবারিক বিষয় নিয়ে সামঞ্জস্যহীনতায় তিক্ততা সৃষ্টি হয় স্বামী-স্ত্রীর মাঝে। আর এই তিক্ততার ফলস্বরূপ গত ১লা জুন বগুড়ার শাজাহানপুরের গোহাইলে অবস্থিত মুসলমান বিবাহ ও তালাক নিবন্ধকের কার্যালয় থেকে স্ত্রীকে তালাক নোটিশ দেন রফিকুল। এর পর নিয়মানুযায়ী দেনমোহরের ৪৫ হাজার ও তিন মাস তেরো দিনের খরচ বাবদ ১০ হাজার মোট ৫৫ হাজার টাকা পোষ্ট অফিসের মাধ্যমে স্ত্রীর নিকট পাঠান তিনি। কিন্তু পোষ্ট অফিসের মাধ্যমে পাঠানো টাকা না নিয়ে স্বামীর বাড়ি নিজ বাড়ি বলে দাবি করে স্বামীর বাড়িতেই জোরপূর্বক অবস্থান করছেন বলে অভিযোগ করেছেন স্বামী রফিকুল ইসলাম। এ ঘটনায় গত ৭ জুলাই বাড়ি থেকে বেরহয়ে যাওয়ার কথা বলতে গেলে রেহেনা খাতুনের দুই ভাই সহ আজ্ঞাত ব্যক্তিরা ততক্ষণাত ওই বাড়িতে উপস্থিত হয়ে পাড়া-প্রতিবেশীদের সামনেই (স্বামী) রফিকুলকে অকথ্য ভাষায় গালাগালি ও প্রাণনাশের হুমকি দেয়। এমনকি আতœহত্যা করে স্বামীকে ফাঁসানোর হুমকিও দেয়া হয়েছে বলে অভিযোগে উল্লেখ করা হয়েছে।
এ বিষয়ে শেরপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি সার্বিক) মো: মিজানুর রহমান বলেন, ঘটনার তদন্ত করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *