বগুড়া শেরপুরে জমি নিয়ে সংঘর্ষ;আহত ০৩ !থানায় পাল্টাপাল্টি অভিযোগ! মানববন্ধন!

স্টাফ রিপোর্টার:
বগুড়ার শেরপুরে জমিজমা সংক্রান্ত বিরোধের জের ধরে দুই পক্ষের সংঘর্ষে চালকল মালিক সমিতির নেতা সিরাজুল ইসলামসহ তিনজন আহত হয়েছেন। এর প্রতিবাদে মানবববন্ধন করেছে এলাকাবাসী।এ ঘটনায় শেরপুর থানায় দুই পক্ষ পৃৃথক দুটি এজাহার দাখিল করেছে।
জানা গেছে, শেরপুর উপজেলার শাহবন্দেগী ইউনিয়নের শেরুয়া মৌজার ৭৫শতাংশ জমি নিয়ে চালকল মালিক সিরাজুল ইসলামের সাথে শামীম হোসেনের দীর্ঘদিন যাবত বিরোধ চলে আসছিল। এরই এক পর্যায়ে রোববার দুপুরের দিকে শেরুয়া বটতলা এলাকায় দুইপক্ষের মধ্যে সংঘর্ষ হয়। এতে শেরপুর উপজেলা সেমি অটো মিল মালিক সমিতির সাধারণ সম্পাদক সিরাজুল ইসলাম শেখ (৫২) ও নয়াপাড়ার মো. গালিব (২২) ও রাকিবুল ইসলাম (২০) আহত হন।

এ ঘটনায় আজ বিকালে সেমিঅটো মিল মালিক সমিতির ব্যবসায়ী ও স্থানীয়রা শেরুয়া বটতলা বাজারে বিচারের দাবিতে মানববন্ধন ও প্রতিবাদ সভা করে। মানববন্ধনে উপস্থিত ছিলেন বগুড়া ৫ আসনের সংসদ সদস্য এর সন্তান, ধুনট উপজেলা আওয়ামী লীগের সহ সভাপতি আসিফ ইকবাল সনি, শেরপুর উপজেলা সেমি অটো চালকল মালিক সমিতির সভাপতি ও আ.লীগ নেতা আবু তালেব আকন্দ, উপজেলার চালকল মালিক সমিতির সাধারণ সম্পাদক ডা. আব্দুল হামিদ, চালকল মালিক নেতা আলহাজ¦ বছির উদ্দিন, হুমায়ুন কবিরসহ কয়েকশ এলাকাবাসী উপস্থিত ছিলেন।

তারা সিরাজুলের ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে হামলা ও ভাংচুর করে তাকে গুরুতর আহত করার তীব্র নিন্দা জানান। এদিকে থানায় দায়ের করা এজাহারে নজরুল ইসলাম লিটন অভিযোগ করেছেন, রোববার দুপুর ১২.৪৫ মিনিটের দিকে ১০/১২টি মোটরসাইকেল যোগে সোহেল রানা, গালিব, রোমান, সেলিম রেজা, রকি, রাজনসহ ১৫/২০জন আমার ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে গিয়ে ৪ লাখ টাকা চাঁদা দাবী করে। আমি ও আমার পিতা তা দিতে অস্বীকৃতি জানালে তারা আমার পিতাকে বাশের লাঠি ও কাঠের বাটাম দিয়ে মারপিট করে ফোলা জখম করে। পরে তাকে শেরপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়।

এ ঘটনায় শেরপুর থানায় কর্মকারপাড়ার মঈন উদ্দিন তালুকদার রোববার রাতে এজাহারে অভিযোগ করেন, সিরাজুল ইসলাম আমাদের জায়গা দখল করে বাঁশের বেড়া দেয়। বিষয়টি মীমাংসার জন্য আমরা কয়েকজন সিরাজুল ইসলামের ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে যাবার সময় ২০/২৫ জন আমাদের ঘিরিয়া ধরে হামলা করে ৪টি মোটর সাইকেল ভাংচুর করে ৬ লাখ টাকার ক্ষতি করে এবং গালিব ও রাকিবুলকে বেদম মারপিট করে আহত করে। পরে তাদের শেরপুর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। এ ব্যাপারে শেরপুর থানার পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) আবুল কালাম আজাদ জানান, দুই পক্ষের দুটি অভিযোগ পাওয়া গেছে। তদন্ত সাপেক্ষে প্রয়োজনীয়ব্যবস্থা নেয়া হবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *