সাতক্ষীরার তালায় গ্রাম আদালতের মাধ্যমেই সুদিন ফিরেছে নারায়ণের

এস,এম,হাবিবুল হাসান :
সাতক্ষীরার তালায় গ্রাম আদালতের মাধ্যমেই নিজের জীবনের গতিপথ ফিরিয়ে এনেছে নারায়ণ চন্দ্র সিংহ। বর্তমানে নারায়ণ সিংহ একজন প্রতিষ্ঠিত পান ব্যবসাযী।সে তালা উপজেলার তেঁতুলিয়া ইউনিয়নের লাউতাড়া গ্রামের মৃত অনিল চন্দ্র সিংহের ছেলে।

জানাযায়,নারায়ণ সিংহ গত দুই বছর আগে একই গ্রামের এক জৈনিক(নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক)ব্যাক্তিকে আট হাজার টাকা ধার বা কর্য হিসাবে দেয়। তবে এই ধার দেওয়ায় যেন তার বড় অন্যায় হয়ে দাঁড়ায়। কারন তার ধার দেওয়া টাকাটা অবশেষে স্থানীয় গ্রাম আদালতের মাধ্যম দিয়েই ফেরৎ পেতে হয়েছিল।

নারায়ণ চন্দ্র সিংহ ধার টাকা ফেরৎ পাওয়ায় জন্য তালার তেঁতুলিয়া ইউনিয়ন গ্রাম আদালতে মামলা করেন। পরবর্তীতে ২০১৮ সালের ২৩শে জুন তেঁতুলিয়া ইউনিয়নের চেয়ারম্যান সরদার রফিকুল ইসলাম এবং সংশ্লিষ্ট ওয়ার্ডের মেম্বরদের নিয়ে গ্রাম আদালতে বসিয়ে নারায়ণ চন্দ্রের টাকা তার কাছে হস্তান্তর করেন।

টাকা ফেরৎ পেয়ে নারায়ণ তালার মদনপুর বাজারে পানের ব্যবসা শুরু করেন। সেখান থেকেই তার জীবনের গতিপথ ভিন্ন ধারায় প্রবাহিত হয়। আজ তিনি মদনপুর বাজারের একজন প্রতিষ্ঠিত পান ব্যবসায়ী। তিন পুত্র এবং স্ত্রীকে নিয়ে স্বচ্ছল একটি পরিবার তার।

নারায়ণ চন্দ্র বলেন,আমি টাকা ফেরৎ পেয়ে পানের ব্যবসা শুরু করি। আস্তে আস্তে অল্প পুঁজিতে ব্যবসা করতে করতে আজ আমার একটা ভালো অবস্থান তৈরী হয়েছে। আমি এখন খুব ভালো ভাবে পরিবার নিয়ে দিনপাত করছি।

তালা উপজেলার তেঁতুলিয়া ইউপির গ্রাম আদালত সহকারী শাহিনারা খাতুন জানান,দুই বছর আগে আমাদের গ্রাম আদালতের মাধ্যমে তার টাকাটা ফেরৎ দেওয়া হয়। সেখান থেকেই তিনি ব্যবসা শুরু করে ভালো অবস্থায় গিয়েছেন বলে আমি জানি। নারায়ণ চন্দ্র ছাড়াও আরো অনেক অসহায়,দরিদ্র,ভুক্তভোগী পরিবারকে গ্রাম আদালতের মাধ্যমে আমরা সহযোগীতা দিয়ে আসছি।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *