সিরাজদিখানে হাউজিং দখলকে কেন্দ্র করে দু-পক্ষের সংঘর্ষে ৩ পুলিশ সদস্য আহত!

সিরাজদিখান (মুন্সিগঞ্জ) প্রতিনিধিঃ
মুন্সিগঞ্জের সিরাজদিখান উপজেলার বালুচর ইউনিয়নের সুমনা হাউজিং ও দক্ষিণা গ্রীন সিটি হাউজিং প্রকল্প দখল ও সাইনবোর্ড লাগানোকে কেন্দ্র করে দু-পক্ষের মধ্যে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। সংঘর্ষ থামাতে গিয়ে সিরাজদিখান থানা পুলিশের এক এএসআই ও দুইজন কনেষ্টবল আহত হয়। উপজেলার বালুচর ইউনিয়নের চান্দের চর খাসকাদি এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। গত শনিবার রাত থেকে শুরু হয়ে রবিবার সকাল ৭ টা পর্যন্ত চলে এ সংঘর্ষ। গতকাল রবিবার সকালে খবর পেয়ে থানা পুলিশ পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে ঘটনাস্থলে ১৫ রাউন্ড গুলি বর্ষন করা হয়। এসময় ওই এলাকায় অভিযান পরিচালনা করে সহস্রাধিক দেশীয় অস্ত্র টেঁটা বল্লম উদ্ধার করে পুলিশ।

স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, কয়েক মাস যাবৎ বালুচর ইউনিয়নের খাসকাদি চান্দের চর এলাকায় অবৈধভাবে গড়ে উঠা হাউজিং প্রকল্প সুমনা হাউজিং ও দক্ষিণা গ্রীন সিটির মধ্যে জায়গা দখল ও সাইনবোর্ড লাগানো নিয়ে উভয়পক্ষের মাঝে উত্তেজনা চলছিলো। গত ২১ ফেব্রুয়ারী শুক্রবার ভোর সকালে সুমনা হাউজিংয়ের লোকজন বহিরাগত মানুষ ভাড়া করে দেশীয় অস্ত্রের মহড়া দিয়ে জোর পূর্বক গ্রীন সিটির সব সাইনবোর্ড ভেঙে নিয়ে যায় এবং দক্ষিণা গ্রীন সিটির সাইনবোর্ডের জায়গায় সুমনা হাউজিং’র সাইনবোর্ড লাগিয়ে দেয়। এদিকে সুমনা হাউজিংয়ের সাইন বোর্ড ভেঙে নিজেদের স্থান পূর্ণদখল নিচ্ছে দক্ষিণা গ্রীন সিটি। এ নিয়ে দুটি হাউজিং প্রকল্পের লোকজনের মাঝে ধাওয়া পাল্টা ধাওয়াসহ সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে।

সিরাজদিখান থানার ওসি ফরিদ উদ্দিন জানান, দুটি হাউজিং প্রকল্পের লোকজনের মধ্যে একটি জায়গা দখল পাল্টা দখল নিয়ে সংঘর্ষের জন্য জড়ো হলে পুলিশ আইন শৃঙ্খলা পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে তাদের উপর লাঠি চার্জ করে। এসময় জনতা ইট পাটকেল নিক্ষেপ করলে একজন এএসআইসহ ২ কণেস্টবল আহত হয়। পরে পুলিশ ১৫ রাউন্ড শর্ট গানের গুলি বর্ষণ করে জনতাকে ছত্রভঙ্গ করে দেয়। বর্তমানে পরিস্থিতি পুলিশের নিয়ন্ত্রণে রয়েছে। পুলিশ ওই এলাকায় অভিযান চালাচ্ছে আইনশৃখলা ভঙ্গকারীদের গ্রেপ্তারের জন্য।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *