কালিগঞ্জে করোনার উপসর্গ নিয়ে আরো একজনের মৃত্যু

এস,এম,হাবিবুল হাসান :
সাতক্ষীরার কালিগঞ্জে করোনাভাইরাসের(কোভিড-১৯) উপসর্গ নিয়ে আশরাপুল ইসলাম খোকা (৪৮) নামে আরো এক ব্যক্তির মৃত্যু হয়েছে। সে উপজেলার মথুরেশপুর ইউনিয়নের বসন্তপুর গ্রামের মৃত হাবিবুর রহমানের ছেলে।

শনিবার সকাল ৮টায় খুলনা আড়াইশো শয্যা মেডিকেল হাসাপাতালে চিকিৎসাধিন অবস্থায় তার মৃত্যু হয়। খোকার মৃত্যুর খবর পেয়ে কালিগঞ্জ উপজেলা প্রশাসন পুরো গ্রাম লকডউন ঘোষণা করেছে।

ইউপি চেয়ারম্যান মিজানুর রহমান গাইন জানান, আশরাফুল ইসলাম অসুস্থ্য হয়ে ঢাকা থেকে ঈদের একদিন আগের কালিগঞ্জের বসন্তপুর গ্রামে তার নিজ বাড়িতে আসে। বুধবার পরিবারের সদস্যরা তাকে উন্নত চিকিৎসার জন্য খুলনায় নিয়ে গেলে আজ সকালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তার মৃত্যু হয়। লাশ বাড়িতে আনা হয়েছে সরকারী নিয়ম মেনে ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।

মৃতের শ্যালক উপজেলার চরদা গ্রামের মুজিবর রহমান জানান, ঢাকা থেকে ৪০ কিলোমিটার দুর নরসিন্দীর মোয়াবাজারে ইজিবাইকের একটি শোরুমে তার দুলাভাই চাকরী করতো। অসুস্থ্য অবস্থায় ঈদের আগে বাড়িতে আসলে প্রথমে তাকে স্থানীয় নাজিমগঞ্জ বাজারের যমুনা ক্লিনিকে ডা. হাবিবুল্লার তত্বাবধায়নে চিকিৎসা দেওয়া হয়। অবস্থার অবনতি হওয়ায় গত বুধবার তাকে খুলনার আড়াইশো শয্যা হাসপাতলে ভর্তি করলে চিকিৎসাধিন অবস্থায় শনিবার সকাল ৮টার দিকে সে মারা যায়। আশরাফুলের ১ ছেলে, ১ মেয়ে ও স্ত্রী রয়েছে।

এদিকে করোনার উপসর্গে মৃত্যুর খবর শোনার পর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোজাম্মেল হক রাসেল স্থানীয় চেয়ারম্যানকে বসন্তপুর গ্রাম লকডাউন করার নির্দেশ দিয়েছেন।

উপজেলা স্বাস্থ্য ও প.প. কর্মকর্তা ডা. শেখ তৈয়েবুর রহমান জানান, মৃত ব্যক্তির বাড়িতে আমিসহ স্বাস্থ্য বিভাগের ৫ কর্মী অবস্থান করছি। সরকারী সকল নিয়ম মেনে জানাজা ও দাফনের ব্যবস্থা করা হবে।

সাতক্ষীরা সিভিল সার্জন অফিসের মেডিকেল অফিসার ডা. জয়ন্ত সরকার জানান, সাতক্ষীরায় করোনার উপসর্গ নিয়ে এ পর্যন্ত মোট ১২ জনের মৃত্যু হয়েছে। এর মধ্যে ৯ জনের রিপোর্ট সাতক্ষীরা সিভিল সার্জন কার্যালয়ে এসে পৌছেছে। ৯ টি রিপোর্টই নেগেটিভ এসেছে।

এদিকে, সাতক্ষীরা জেলায় আজ শনিবার(৩০ মে) পর্যন্ত মোট ৪০ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *