মহাদেবপুরে নিমাই তরনী দাস ভিক্ষা করেই সংসার চালাই

মহাদেবপুর(নওগাঁ) প্রতিনিধি ঃ নওগাঁর মহাদেবপুর উপজেলার উত্তরগ্রাম ইউনিয়নের দরিয়াপুর(শীবগঞ্জ) গ্রামের মৃত খেরু তরনী দাসের ছেলে নিমাই তরনী দাস ভিক্ষা করেই সংসার চালাতে চায়। অভাবের তারনায় এই পেশায় নেমে পরেছেন নিমাই দাস। স্ত্রী মাধবী তরনী দাস ও ২ছেলে ৩ মেয়েকে নিয়ে কোন কোন রকমে খেয়ে না খেয়ে তার সংসার চলে এমন অভিমত নিমাইয়ের।
ভিক্ষার জন্য তিনি সারাদিন এপাড়া ওপাড়ায় মানুষের কাছে হাত পাতেন। ভিক্ষার পেশা ঘৃণার হলেও নিমাই ছাড়তে পারছেন এই পেশা। ৭০ বছর বয়সে এই বৃদ্ধ প্রতিটি মানুষের কাছে নানা অভিযোগ অভিমান করে চাহিদার হাত বাড়ায়। কেউ দেয় আবার কেউ গালিমন্দ দিয়ে বিদায় করে। সকাল হলেই শুরু নিমাই তরনী দাসের ভিক্ষা ভিক্ষা খেলা। নিমায়ের অভিযোগ অফিস পাড়ায় অফিসারগণ ভিক্ষা দিতে নারাজ। তারপরও ওইসব অফিসারদের দারস্থ হয় তিনি। কেউ দয়া করে ১টাকা ২টাকা আবার কেউ গালি দিয়ে ভিক্ষা দেয়। এমনি ভাবেই চলে নিমাই তরনী দাসের জীবন। ভিক্ষুক নিমাই জানান, এমাসে বষস্ক ভাতা পেয়েছি। বয়স্ক ভাতার টাকা দিয়ে তার সংসার চলে না তাই তিনি ভিক্ষা ছাড়তে পারছেন না। তিনি আরো জানান, ভিক্ষার পেশা ঘৃণার হলেও অভাবের তারনায় এই পেশাকে ছাড়তে পারছেন না। তিনি যতদিন বাঁচবেন ভিক্ষা করেই বাঁচতে চায়। কে এই ভিক্ষাবৃর্তি ঘৃণ্য পেশা থেকে নিমাই তরনী দাসকে ফিরাতে পারবে ?

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *