দুই হাজার পরিবার কে ত্রাণ সহায়তা ব্যাবসায়ী সাইদুরের

মো: আ: হামিদ মধুপুর (টাঙ্গাইল) প্রতিনিধি:
টাঙ্গাইলের মধুপুর উপজেলার পার্শবর্তী ঘাটাইলের লক্ষিন্দর ইউনিয়নের দুস্থ,এতিম ও কর্ম বঞ্চিত প্রায় দুই হাজার পরিবারের মাঝে খাদ্য ও ইফতার সামগ্রী বিতরণ করা হয়েছে।লক্ষিন্দর ইউনিয়নের বিশিষ্ট ব্যাবসায়ী আলহাজ্ব সাইদুর রহমানের নিজস্ব অর্থায়নে এই বিতরণ কার্যক্রম পরিচালিত হয়।বিতরণকৃত সামগ্রীর মধ্যে রয়েছে,চাল,ডাল,আলু,ডিম,তেল এবং ইফতার সামগ্রী হিসাবে ছোলা ও মুড়ি।

ইউনিয়নের ওয়ার্ড মেম্বার ও এলাকাবাসী সূত্রে জানা যায়,রমজানের শুরু থেকেই ইউনিয়নের সকল ওয়ার্ড মেম্বার ও এলাকার স্বেচ্ছাসেবকদের সহায়তায় ত্রাণ সামগ্রী বিতরণ করেছেন আসছেন ব্যাবসায়ী সাইদুর রহমান।ত্রাণ বিতরণে স্বচ্ছতা ও নিরাপদ দূরত্ব বজায় রাখতে সকাল থেকে রাত পর্যন্ত ভ্যানে করে নিজেই পৌঁছে দিচ্ছেন ঘরে ঘরে।তার এই সহায়তা পেয়ে যেন করোনার বিরুদ্ধে প্রতিরোধ গড়ার বারতি সাহস পাচ্ছে ইউনিয়নের দুস্থ এবং কর্ম বঞ্চিত অসহায় মানুষ গুলো।

সারা রমজান মাস জুড়ে এই সহায়তা অব্যাহত রাখার প্রতিশ্রুতি জানিয়ে সাইদুর রহমান বলেন,মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা,দলের নেতাকর্মী সহ বিত্তবানদের নির্দেশ দিয়েছেন অসহায় মানুষ গুলোর পাশে দাড়ানোর।তার নির্দেশনা অনুযায়ী আমি আমার সাধ্য মতো চেষ্টা করছি।রমজান মাসের শুরু থেকে সহায়তা সামগ্রী দুস্ত মানুষদের ঘরে ঘরে পৌঁছে দিচ্ছি।কিছু মানুষ আছেন যারা লজ্জায় বলতে চাননা,রাতের বেলায় তাদের ঘরে নিজে গিয়ে পৌঁছে দিচ্ছি।সবাইকে সচেতন করার পাশাপাশি তাদের এটাও বুঝাতে চেষ্টা করছি যে,এটা ত্রাণ নয় মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর পক্ষ থেকে আপনাদে জন্য উপহার।এখানে লজ্জার কিছু নেই।এপর্যন্ত প্রায় দুই হাজার পরিবার কে ত্রাণ সহায়তা দিতে পেরেছি।পুরো রমজান মাস জুড়েই এ কার্যক্রম তলবে।এরপর ও পরিস্থিতি স্বাভাবিক না হওয়া পর্যন্ত আমি সাধ্যমতো সবার পাশে থাকার চেষ্টা করবো।সবাই সাথে নিয়েই এই দূর্যোগের মোকাবেলা করবো ইনশাআল্লাহ।এজন্য তিনি সমাজের বিত্তবান ব্যক্তিদের এগিয়ে আসার আহ্বান জানান।

এদিকে সাইদুর রহমানের এই মহৎ উদ্যোগ কে সাধুবাদ জানিয়েছেন এলাকার সচেতন মহলঃ ,সানবান্ধা,পঞ্চায়েত বাড়ীর বিশিষ্ট ব্যাবসায়ী দারুল ইসলাম বলেন,তরুন উদ্যোগক্তা এবং বিশিষ্ট ব্যাবসায়ী সাইদুর যে কাজটি করছে, এখান থেকে আমাদের শিক্ষা নেয়া উচিত।তার মতো সমাজের বিত্তবান ব্যক্তিরা এগিয়ে এলে যেকোনো দূর্যোগই মোকাবেলা করা সম্ভব।

ছয় নং ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য বাহাদুর মেম্বার বলেন,আমার ওয়ার্ডের বেশিরভাগ মানুষ দরিদ্র সীমার নিচে বসবাস করে।এছাড়া এখানে সরকার কতৃক নির্মিত গুচ্ছগ্রামও রয়েছে।ইউনিয়ন পরিষদ থেকে যে বরাদ্দ পেয়েছি তা যথেষ্ট ছিলোনা।সাইদুর ভাই যেভাবে অসহায় মানুষগুলোর সহযোগিতায় এগিয়ে এসেছেন এজন্য আমি আমার ওয়ার্ডের জনগণের পক্ষ থেকে ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা জানাই।শুধু সরকারের উপর দ্বায় না চাপিয়ে,সাইদুর রহমানের মতো সমাজের সবাই কে এগিয়ে আসার অনুরোধ জানান।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *