বগুড়ার গাবতলীতে ট্রাক চালক ও হেলাপারকে মারধোরের ঘটনাকে আড়াল করতে মামলা ঃ এলাকায় উত্তেজনা

রাজিবুল ইসলাম ,বগুড়া থেকে ।।
বগুড়ার গাবতলীতে রাস্তায় মোটর সাইকেলকে সাইড দিতে দেরী হওয়ায় ব্যারিকেড দিয়ে গাড়ী থেকে নামিয়ে মিনি ট্রাক চালক হেলপার মারপিট করার ঘটনা ঘটেছে । এসময় তাদের রক্ষায় এগিয়ে আসা ব্যবসায়ীদের মারধোর এবং ঘটনায় ধামা চাপা দিতে উল্টা তাদের বিরুদ্ধেই মামলা দেবার ঘটনায় এলাকায় উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়েছে। ঘটনাটি ঘটেছে গত ৫মে (মঙ্গলব্রা )উপজেলার তরণীহাটে।
জানা গেছে, গত ৫ মে তারিখে গাবতলী উপজেলার বালিয়াদীঘি ইউনিয়নের রাস্তা দিয়ে মিনি ট্রাক চালিয়ে তরনীহাটের দিকে যাচ্ছিলেন চালক রাশেল(৩০) ও হেলপার আল আমিণ(২৭)। এসময় হাটের অনতিদুরে একটি কাঠের সরু সেতু অতিক্রম কালে মোটর সাইকেল যোগে পেছনে আসা ২ যুবক হর্ন বাজিয়ে ট্রাক চালকের কাছ থেকে সাইড যায়। এসময় সাইড দিতে দেরী হওয়ায় মোটর সাইকেল আরোহীরা পাশা কাটিয়ে বিপদজনক অবস্থায় ওভারটেক করতে শুরু করে। এতে করে ট্রাকের সাথে তাদের মোটর সাইকেলের ধাক্কা লাগে ।
এসময় চালক ট্রাক চালিয়ে হাটের মধ্য প্রবেশকালে পেছন থেকে আরোহীরা দ্রুত মোটর সাইকেল চালিয়ে ট্রাকের সামনে এসে ব্যারিকেড দেয় এবং ট্রাক চালক হেলপার দুই ভাই রাশেল ও আল আমিনকে টেনে হিচরে ট্রাক থেকে নামিয়ে বেধড়ক ভাবে পেটাতে শুরু করে।
প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান , মোটর সাইকেল আরোহী এলাকার খলিলের ছেলে ও তার এক বন্ধু এবং সাবেক চেয়ারম্যান রিবনের নির্দেশে তার কয়েকজন আত্বিয় ট্রাক চালক ও হেলপারকে বেধড়ক ভাবে মারপিট করতে থাকে।
এসময় তাদের চিৎকারে স্থানীয় কয়েকজন ব্যবসায়ী ও এলাকাবাসী এগিয়ে এলে তাদেরকেও মারধোর করে তারা । ঘটনাটি জানতে সেখানে ভীর করে হাটে আসা মানুষজন । এসময় অন্যায় ভাবে ট্রাক চালক হেলপারকে মারধোর করার ঘটনায় লোকজন ক্ষুব্ধ হয়ে তাদের ধাওয়া দিলে পড়ে গিয়ে খলিলুর নামের এক ব্যবসায়ীর মাথা কেটে যায় । পরে এলাকার বিভিন্ন প্রবীন রাজনৈতিক ব্যাক্তি এবং গন্যমান্য ব্যক্তিরা এসে জনতার রোষ থেকে রক্ষায় ব্যবসায়ী খলিলে ব্যবসায় প্রতিষ্ঠানে নিরাপত্তা প্রদান করে।
সরেজমিনে এলাকায় গেলে প্রত্যক্ষদর্শী এলাকার সাবেক মেম্বার সুরুজ্জামান মন্ডল ব্যবসায়ী হোসেন ও প্রভাষক জাহিদুর রহমান ঘটনা জানিয়ে বলেন , এলাকার প্রভাবশালী ব্যাক্তি খলিলুর রহমানের ছেলে ও তাদের পক্ষের লোকজন ট্রাক চালক হেলপারকে মারধোর করার শুরু করলে হাটের মানুষজন তাদের সংংগবদ্ধ হয়ে ধাওয়া করে এতে দৌড়াতে গিয়ে ব্যবসায়ী খলিলুর পড়ে গিয়ে আঘাত পান।
এব্যপারে তরণীহাটের ইজারদার মোহাম্মদ জাহাঙ্গীর আলম জানান, ঘটনার পরপর দোষী ব্যক্তিরা পালিয়ে যায় । তিনি বলেন , ঘটনাস্থলে কোন ভাঙচুর লুটপাটের ঘটনা ঘটেনি। বরঞ্চ এলাকার গন্যমান্যরা সেখানে গিয়ে ক্ষুদ্ধ জনতাকে বিরত করেন এবং আহত ব্যবসায়ীকে উদ্ধার করে তার ব্যবসায়ী প্রতিষ্ঠানে নিরাপত্তা দেয়।
এ বিষয়ে গাবতলী থানার অফিসার ইনচার্জ ( ওসি সার্বিক) নূরুজ্জামানের সাথে কথা বলা হলে তিনি জানান, পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছে। সুষ্ট এবং নিরপেক্ষ তদন্তের মাধ্যমে প্রকৃত দোষীকে খুঁজে বের করা হবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *