সাতক্ষীরায় পিসিআর ল্যাব স্থাপনের দাবি করলেন সংসদ সদস্য অ্যাড. মুস্তফা লুৎফুল্লাহ

এস,এম,হাবিবুল হাসান :
সাতক্ষীরা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে জরুরী ভিত্তিতে পিসিআর ল্যাব স্থাপনের দাবিতে গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের প্রধানমন্ত্রী ও স্বাস্থ্যমন্ত্রীকে অনানুষ্ঠানিক পত্র (ডিও) দিয়েছেন সাতক্ষীরা-১ আসনের জাতীয় সংসদ সদস্য এবং সাতক্ষীরা জেলা ওয়ার্কার্স পার্টির সভাপতি অ্যাড. মুস্তফা লুৎফুল্লাহ।

রোববার (২৬ এপ্রিল) ই-মেইলের মাধ্যমে তিনি এই পত্র দেন।
এতে উল্লেখ করা হয়েছে, গত ১-২৮ মার্চ সাতক্ষীরায় পৃথিবীর বিভিন্ন দেশ থেকে ১১ হাজার মানুষ এসেছিল। তাদের কোয়ারেন্টাইন নিশ্চিত করা সম্ভব হওয়ায় প্রবাসীদের দ্বারা কেউ করোনা আক্রান্ত হয়নি। কিন্তু গত ২ সপ্তাহে ঢাকা, নারায়নগঞ্জ, গাজীপুর, মাদারীপুর, শরীয়তপুরসহ বিভিন্ন করোনা আক্রান্ত জেলার লক ডাউন উপেক্ষা করে সাতক্ষীরায় সড়ক ও নৌপথে ২০ হাজারেরও বেশি শ্রমজীবী মানুষ এসেছে এবং আসা এখনো অব্যাহত রয়েছে। এমতাবস্থায় বিপুল সংখ্যক শ্রমজীবী মানুষ ফিরে আসাতে জেলাবাসী শঙ্কিত। যদিও সাতক্ষীরায় এখন পর্যন্ত কোন করোনা আক্রান্ত রোগী শনাক্ত হয়নি। কিন্তু করোনা আক্রান্ত জেলা থেকে বিপুল সংখ্যক শ্রমজীবী মানুষ আসার ফলে এখানে সংক্রমণের ঝুঁকি প্রবল। করোনা সংক্রমণের ঝুঁকি হ্রাসে করোনা শনাক্ত কার্যক্রম বৃদ্ধি এবং শনাক্তকৃত রোগীদের আইসোলেশনে রাখা অতীব জরুরী।
অথচ এ সকল ক্ষেত্রে এ পর্যন্ত ২৭০জনের নমুনা পাঠানো হলেও ১০৮জনের রিপোর্ট পাওয়া গেছে (আপডেট তথ্য: নমুনা সংগ্রহ ২৮৭, রেজাল্ট ১৪১ নেগেটিভ)। এ মুহূর্তে আক্রান্ত জেলা থেকে আগত ২০ হাজার শ্রমজীবী মানুষের করোনা শনাক্ত করা জরুরী হয়ে পড়েছে। প্রায় বিভিন্ন উপজেলায় করোনা উপসর্গ নিয়ে মানুষ মারা যাচ্ছে, কিন্তু মৃত্যুর সংবাদ যথাসময়ে না পাওয়ায় দীর্ঘসূত্রিতার কারণে সেসব পরীক্ষার রিপোর্ট নেগেটিভ হচ্ছে।

পত্রে আরও বলা হয়, গত ১৪/১৫ দিনে আক্রান্ত জেলা আগত শ্রমজীবী মানুষের করোনা পরীক্ষা দ্রুত সময়ের মধ্যে করা সম্ভব হলে সংক্রমণের ঝুঁকি হ্রাস পাবে এবং আক্রান্ত হলে তাৎক্ষণিক ব্যবস্থা গ্রহণের মাধ্যমে তা প্রতিরোধ করা সম্ভভ হবে।

এতে আরও বলা হয়, সাতক্ষীরা জেলায় ২০০৮ সালে একটি স্বতন্ত্র আধুনিক মেডিকেল কলেজ প্রতিষ্ঠিত হয়। এখানে ভেন্টিলেশনসহ ০৮টি সচল আইসিইউ ইউনিট রয়েছে। এছাড়া পিসিআর ল্যাব স্থাপনের বায়োসেফটি রুমসহ সকল সুযোগ সুবিধা বিদ্যমান এবং এই হাসপাতালটি শুধুমাত্র করোনা চিকিৎসার জন্য সুনির্দিষ্ট করে রাখা হয়েছে। তাই সাতক্ষীরা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে জরুরী ভিত্তিতে একটি পিসিআর ল্যাব স্থাপন করে করোনা আক্রান্ত মানুষকে দ্রুত চিহ্নিতপূর্বক সেবাদান তরান্বিত করতে পারলে করোনা সংক্রমণের ঝুঁকি হ্রাস ও রোধ করা সম্ভব।

পত্রে সাতক্ষীরা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে জরুরী ভিত্তিতে একটি পিসিআর ল্যাব স্থাপন করার জন্য প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের অনুরোধ জানান তিনি।

এ প্রসঙ্গে সাতক্ষীরা-১ আসনের সংসদ সদস্য মুস্তফা লুৎফুল্লাহ বলেন, এখানে পিসিআর ল্যাব স্থাপন করা খুবই জরুরী। আশা করি মাননীয় প্রধানমন্ত্রী আমাদের দাবি বিবেচনা করবেন।

প্রসঙ্গত, ভারত থেকে বেনাপোল বন্দর দিয়ে দেশে প্রবেশের পর জ্বর ও সর্দি কাশি থাকায় সাতক্ষীরার শ্যামনগরের একজন অধিবাসীকে যশোরে প্রাতিষ্ঠানিক কোয়ারেন্টাইনে রাখা হয়। তার নমুনা পরীক্ষা করে শনিবার (২৫ এপ্রিল) করোনা পজেটিভ রেজাল্ট এসেছে। তাকে যশোর স্বাস্থ্য বিভাগের তত্ত্বাবধানেই চিকিৎসা সেবা দেওয়া হচ্ছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *