মানিকগঞ্জের সাটুরিয়ার ৯ অফিস আছে কর্মকর্তা নেই, ইউনিয়ন পরিষদে

সাটুরিয়া (মানিকগঞ্জ )প্রতিনিধি
মানিকগঞ্জের সাটুরিয়া উপজেলার ৯ ইউনিয়ন পরিষদে সরকারি কর্মকর্তা ও সহকারী কর্মকর্তাদের অফিস থাকলেও কেউ অফিস করেন না। এসব কর্মকর্তার নামে ইউনিয়ন পরিষদে কক্ষ বরাদ্দ থাকলেও তাদের কোনো দিন অফিসে বসতে দেখা যায়নি। বছরজুড়ে এসব অফিস তালাবদ্ধ থাকে বলে জানান সংশ্লিষ্ট ইউপি চেয়ারম্যানরা। ইউপি চেয়ারম্যানদের অভিযোগ, এসব অফিসে সরকারের বিভিন্ন উন্নয়নমূলক কর্মকা- ও এলাকার সড়কের বেহাল দশা, গবাদি পশুর নানা সমস্যা, শিক্ষা নিয়ে সচেতনতামূলক অনুষ্ঠান, এলাকার নিরাপত্তা নিয়ে আনসারদের সঙ্গে মতবিনিময়, বিআরডিবি সদস্যদের নিয়ে সমবায় সমিতি ও ঋণ নিয়ে আলোচনা, কৃষককে নিয়ে মাঠপর্যায়ে আলোচনা এবং সাধারণ মানুষকে নিয়ে মতবিনিময় হওয়ার কথা। অফিসে না এসে অযথা ইউনিয়ন পরিষদের এসব কক্ষ আটকে রেখেছেন কর্মকর্তারা।
সাটুরিয়া উপজেলা ইউনিয়ন পরিষদে শিক্ষা অফিস, প্রাণিসম্পদ অফিস, কৃষি অফিস, বিআরডিবি অফিস, আনসার-ভিডিপি ও এলজিইডি অফিস রয়েছে। এসব অফিসে একজন করে সহকারী কর্মকর্তা সপ্তাহে তিন দিন বসার কথা থাকলেও তাদের সারা বছরেও খুঁজে পাওয়া যায় না। একমাত্র উপজেলা কৃষি অফিসের সহকারী কর্মকর্তারা মাঝেমধ্যে বসে কৃষকের সঙ্গে মতবিনিময় করেন। সাটুরিয়া উপজেলা পরিষদ সূত্রে জানা গেছে, তৃণমূল মানুষের কাছে সেবা পৌঁছে দিতে সরকার ইউনিয়ন পরিষদগুলো তৈরি করছে। সাধারণ মানুষের গুরুত্বপূর্ণ তথ্য ও সেবা পাওয়ার জন্য ইউনিয়ন পরিষদগুলোয় সরকারি কর্মকর্তাদের একটি করে কক্ষ বরাদ্দ করা হয়েছে। কিন্তু তারা না আসায় মানুষ সেবাবঞ্চিত হচ্ছে। অন্যদিকে অলস পড়ে আছে কক্ষ।
সাটুরিয়া উপজেলার সংশ্লিষ্ট দপ্তরের কর্মকর্তাদের সঙ্গে যোগাযোগ করে জানা গেছে, লোকবল সংকট থাকায় ইউনিয়ন পরিষদে বরাদ্দকৃত অফিসে কাউকে নিয়মিত বসানো যাচ্ছে না। তবে মাঝে মধ্যে কর্মকর্তারা অফিসে বসেন। সাটুরিয়া উপজেলার ৯ ইউনিয়ন পরিষদে সরেজমিন দেখা যায়, অফিসগুলো খালি ও তালাবদ্ধ অবস্থায় পড়ে রয়েছে।
সাটুরিয়ার ইউএনও আশরাফুল আলম এ বিষয়ে আজ সকালে বলেন, ইউনিয়ন পরিষদে সরকারি কর্মকর্তাদের নিয়মিত অফিস করা নিশ্চিত করতে সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তাদের নিয়ে বসা হবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *