দীর্ঘমেয়াদী ২৩ কারাবন্দীর মুক্তি দাবী স্বজনদের

সিরাজগঞ্জ প্রতিনিধি:
সিরাজগঞ্জ ও পাবনা জেলা কারাগারে ২০ বছরের অধিক সময় কারাভোগকারী ২৩ আসামীর মুক্তি দাবী করেছেন স্বজনেরা। মুজিববর্ষ উপলক্ষে কারাবিধি প্রথম খন্ডের ৫৬৯ ধারা মোতাবেক এসব কয়েদীদের মুক্তির জন্য প্রধানন্ত্রীর কাছে আবেদন জানিয়েছেন তারা।
বৃহস্পতিবার (১২ মার্চ) দুপুরে সিরাজগঞ্জ শহরের নিউজ হোমের হলরুমে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে এ দাবী জানান স্বজনেরা।
আসামীরা হলেন, আমির হোসেন সবুজ(কয়েদী নং ১৪৮২/এ), জয়নাল, ইসমাইল হোসেন, শিপন(কয়েদী নং ৩৫৬/এ), হিরা(কয়েদী নং ২৯২৮/এ), মমিন (কয়েদী নং ২৯২৭/এ), আমিনুল(কয়েদী নং ৩৩২৭/এ), নূর হোসেন, মো. হাফিজুল (কয়েদী নং ৯২২৩/এ), মোজাম্মেল, খোরশেদ, রমজান আলী, আব্দুল হাই, তোফাজ্জল হোসেন, মো. রফিক, আব্দুল মজিদ, মো. বেল্লাল, মো. কিরণ (কয়েদী নং ৩৩২৫/এ), মো. নুরু মিয়া, আব্দুল হাকিম, মিজানুর রহমান মিজান, মো. রফিক, মো. ইসরাইল ও শাহা আলী,
সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্যে কারাবন্দী আমির হোসেন সবুজের ভাতিজা সুলতান মাহমুদ বলেন, ৫৬৯ ধারা মোতাবেক রেয়াদ বাদে ২৩ আসামীর বেশিরভাগই ২১ থেকে ২২ বছর কারাভোগ করেছে। ২০১০, ২০১১ ও ২০১৩ সালের পর দীর্ঘ মেয়াদী কারাবন্দীদের মুক্তি দেয়া স্থগিত রয়েছে। ফলে এসব আসামীর প্রাপ্ত রেয়াদসহ সাজার মেয়াদ শেষ হয়ে গেলেও মুক্তি স্থগিত রয়েছে। তিনি বলেন, আসামীদের অনেকেই বয়সের ভারে নূব্জ হয়ে পড়েছে। কেউ কেউ অসুস্থ্যও হয়ে পড়েছে। শেষ বয়সে বৃদ্ধ বাবা-মায়ের সেবা করার জন্য বন্দীদের মানবিক বিবেচনা করে মুক্তি দেয়া প্রয়োজন।
এ সময়, জাহানারা বেগম, সোহাইল আহম্মেদ, রেহেনা খাতুনসহ অন্যান্য কয়েদীদের স্বজনেরা উপস্থিত ছিলেন।
এ বিষয়ে সিরাজগঞ্জ জেলা কারাগারের সুপারিনটেনডেন্ট আল মামুন জানান, এসব কারাবন্দীদের তালিকা ইতিমধ্যে মন্ত্রণালয়ে সিদ্ধান্তের জন্য পাঠানো হয়েছে। মন্ত্রণালয়ের সিদ্ধান্তের উপর কারাবন্দীদের ভবিষ্যৎ নির্ভর করবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *