শেরপুরে বরো ধানের শুকনা বীজতলা তৈরীতে আগ্রহী হয়ে উঠছে কৃষকরা

স্টাফরিপোর্টার:
বগুড়ার শেরপুরে বরো ধানের শুকনা বীজতলা তৈরীতে আগ্রহী হয়ে উঠছে কৃষকরা। ঘোন কুয়াশা ও শীতজনীত রোগ থেকে রক্ষা পেতে কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর কৃষকদের শুকনা বীজতলা তৈরীর পরামর্শ দিচ্ছেন।
শেরপুর উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা মোছা. সারমিন আক্তার জানান, শীতকালে বরো বীজতলা নিয়ে কৃষকরা প্রতিবছরই নানা প্রতিকূলতার সম্মুখীন হন। এ অবস্থা থেকে রক্ষা পেতে কৃষকদের শুকনা বরো বীজতলা তৈরীর জন্য মাঠ পর্যায়ের কর্মকর্তাদের মাধ্যমে কৃষকদের আগ্রহী করে তোলা হচ্ছে। ফলে প্রতিবছর শেরপুরে শুকনা বীজতলার পরিমান বাড়ছে।
উপজেলার গাড়িদহ ইউনিয়নের রানীনগর গ্রামের কৃষক মো. ইকবাল হোসেন জানান, তিনি ১৫ শতাংশ জমিতে শুকনা বীজতলা তৈরী করেছেন। পলেথিন দিয়ে ঢেকে দেয়ার কারণে শীত জনীত কোন রোগের আক্রমন নেই। এছাড়া ২০/২২ দিনের মধ্যেই বীজতলা থেকে চারা রোপন করা যায়। খরচও কম হয়।
উপ-সহকারী কৃষি কর্মকর্তা আব্দুস সালাম জানান, এ পদ্ধতিতে বীজতলা তৈরী করলে কোল্ড ইনজুরী থেকে রক্ষা পাওয়া যায়। তুলনামূলক ফলনও ভালো হয়। ব্যতিক্রমী এই শুকনা বীজতলা গতকাল শুক্রবার দুপুরে পরিদর্শনে এসে সন্তোষ প্রকাশ করেছেন, কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর বগুড়া অঞ্চলের অতিরিক্ত পরিচালক আ.ক.ম শাহরিয়ার, কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর বগুড়ার উপ-পরিচালক মোঃ আবুল কাশেম আযাদ ও কৃষিবীদ মোহাঃ কামাল উদ্দিন তালুকদার।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *