সিরাজদিখানে বিয়ের প্রলোভনে গৃহবধূ কর্তৃক যুবক অপহরণ

সিরাজদিখান (মুন্সীগঞ্জ) প্রতিনিধি:
মুন্সীগঞ্জের সিরাজদিখানে বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে গৃহবধূ কর্তৃক ইমরান বেপারী (২৪) নামে এক যুবককে অপহরনের অভিযোগে দায়ের করা মামলার আসামী মায়া আক্তার (২৯) ও ভিকটিম ওই যুবককে উদ্ধার করেছে থানা পুলিশ। গোপন সংবাদের ভিত্তিতে সঙ্গীয় অফিসার ফোর্সের সহায়তায়
সিরাজদিখান থানার এস,আই তন্ময় মন্ডল গত ১৫ জানুয়ারী শ্রীনগর উপজেলার কয়কীর্ত্তন এলাকা থেকে আসামী মায়া আক্তারকে গ্রেপ্তার করেন। পরে আসামীর দেওয়া তথ্যের ভিত্তিতে ভিকটিম ইমরান বেপারীকে গত ১৯ জানুয়ারী উপজেলার জৈনসার ইউনিয়নের খিলগাও গ্রাম থেকে উদ্ধার করা হয়। পরে তাদের আদালতে সোপর্দ করা হয়। ওই গৃহবধূ খিলগাও গ্রামের আবু বক্করে (স্ত্রী) ও এক সন্তানের জননী এবং একই গ্রামের ভিকটিম যুবক ছোবাহান বেপারীর ছেলে। এ ঘটনায় ভিকটিমের বড় ভাই মনির হোসেন গত ১৯ সালের ২৫ নভেম্বর আদালতে আক্তারসহ অজ্ঞাতনামা বেশ কয়েকজনকে বিবাদী করে একটি সি.আর মামলা দায়ের করেন।

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, উপজেলার জৈনসার ইউনিয়নের খিলগাও গ্রামের আবু বক্করের স্ত্রী গৃহবধূ মায়া আক্তার ও একই গ্রামের ছোবাহান বেপারীর ছেলে ইমরান বেপারীর মধ্যে প্রায় সময় মোবাইল ফোনে কথপকথন হতো। সেই সুবাদে তাদের মধ্যে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে উঠে। ইমরান বেপারী প্রবাস থেকে দেশে ফেরার পর প্রেমের জালে ফাঁসিয়ে বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে গত ১৯ সালের ২৩ অক্টোবর সন্ধ্যায় ইমরান বেপারীর বসত বাড়ীর সামনের রাস্তা থেকে মায়া আক্তার ও তার সহযোগীরা মিলে ইমরান বেপারীকে অপহরন করে নিয়ে যায়।

সিরাজদিখান থানার অফিসার ইনর্চাাজ (ওসি) মো.ফরিদ উদ্দিন জানান, দুজনই প্রাপ্ত বয়স্ক। প্রেমের সম্পর্কের কারণে ঘটনাটি ঘটেছে। ছেলের ভাইয়ের দায়ের করা আদালতের মামলার প্রেক্ষিতে আমরা ছেলেকে উদ্ধার ও মহিলাকে গ্রেপ্তার করে দু’জনকেই সোমবার আদালতে পাঠিয়েছি।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *