টাঙ্গাইলরে মধুপুরে ঘোড় দৌড় প্রতযিোগতিা অনুষ্ঠতি

মধুপুর( টাঙ্গাইল) প্রতনিধি: টাঙ্গাইলরে মধুপুর পৌর শহররে র্দুগাপুর মাঠে গ্রাম বাংলার ঐতহ্যিবাহী ঘোড় দৌড় প্রতযিোগতিা গত কাল শনবিার(১৮জানুয়ারী) বকিলেে অনুষ্ঠতি হয়ছে।ে গ্রাম বাংলার এ ঐতহ্যিকে ধরে রাখতে মধুপুর পৌর এলাকার র্দূগাপুর বঙ্গবন্ধু ক্লাবরে উদ্যোগে র্দূগাপুর মাঠে এ প্রতযিোগতিার আয়োজন করা হয়। এ ঘোড় দৌড়ে অংশ গ্রহন করার জন্য বভিন্নি জলো হতে ঘোড়া নয়িে প্রতযিোগতিা গন এ প্রতযিোগতিায় অংশ নয়ে। ঐতহ্যিবাহী এ খলোটি দখোর জন্য জলোর বভিন্নি উপজলো হতে নারী,পুরুষ, শশিু কশিোররা মাঠরে চতুরদকিে গোলাকার হয়ে বসে খলো উপভোগ করনে। প্রায় পন্চাশ হাজার হাজার র্দশক এ প্রতযিোগতিা উপভোগ করনে।
স্হল বাড়ীএলাকার শওকত আহমদে বলনে, ঘোড়দৌড় দৌড় প্রতযিোগতিা খুবই কম হয়। গ্রাম বাংলার এই ঐতহ্যিকে ধরে রাখতে আমাদরে এলাকায় দুই বছর যাবত এ প্রতযিোগতিার আয়োজন করা হয়। ভবষ্যিতওে এ ধরনরে আয়োজন করার দাবওি জানান তনি।ি
ফাজলিপুর গ্রামরে কালাম ড্রাইভার জানান, ঘোড় দৌড় প্রতযিোগতিা একটি প্রাচীন ঐতহ্যি। আমি আশা করবো এ ঐতহ্যি যনে ধরে রাখা হয়। ঘোড় দৌড় প্রতযিোগতিা মানুষ পছন্দ করে বলইে আজও হাজার হাজার মানুষ খলোটি উপভোগ করনে। খলো ধোলা না থাকায় যুব সমাজ বভিন্নি নশোয় জরয়িে যাচছে বলওে তনিি জানান। তাই এ খলোটি আরও সুন্দর ভাবে আমরা প্রতি বছরই যনে উপভোগ করতে পার।ি
ঘোড় দৌড় প্রতযিোগতিায় অংশ নয়ো মাদার গন্জ এলাকার র্দজি ঘোড়া মালকি সামসুল হক বলনে, আমি ছয় বছর যাবত ঘোড়া দৌড় প্রতযিোগতিায় অংশ নইে। প্রতযিোগতিায় অংশ নতিে আমার খুব ভাল লাগ।ে এ র্পযন্ত আমি অনকে পুরস্কার পয়েছে।ি
ঘোড় দৌড় প্রতযিোগতিা সর্ম্পকে অবসরপ্রাপ্ত ল.ে র্কণলে আসাদুল ইসলাম আজাদ বলনে, বাংলার সংস্কৃতি ধরে রাখতে হলে প্রতটিি এলাকায় এ ধরনরে ঐতহ্যিবাহী খলোর আয়োজন করা খুবই প্রয়োজন। আমাদরে র্দূগাপুরে আগামীতওে এ ধরনরে খলোর আয়োজন করা হব।ে
প্রতযিোগতিাটি উদ্বোধন করনে অবসরপ্রাপ্ত ল.ে র্কণলে আসাদুল ইসলাম আজাদ। এসময় উপস্হতি ছলিনে মধুপুর উপজলো পরষিদরে সাবকে চয়োরম্যান আব্দুল গফুর মন্টু, মধুপুর পৌরসভার ময়ের মো. মাসুদ পারভজে, মধুপুর পৌর আওয়ামীলীগরে সভাপতি সদ্দিকি হোসনে খান, থানা আওয়ামীলীগরে সাংগঠনকি সম্পাদক আবুল কালাম আজাদ,মীর ফরহাদুল আলম মন,ি শাহজাহান তালুকদার চয়োরম্যান মর্জিাবাড়ী ইউনয়িন, মো: শহীদুল ইসলাম খান,প্রমুখ।ঘোড় দৌড় প্রতযিোগতিায় বভিন্নি অঞ্চল থকেে আসা ৪০-৫০ টি ঘোড়া প্রতযিোগতিায় অংশ নয়ে

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *