পরীক্ষাকেন্দ্রে বহিরাগত ঢুকতে বাধা, কনস্টেবলকে মারধর

শরীয়তপুরের ডামুড্যায় একটি পরীক্ষাকেন্দ্রে বহিরাগতদের প্রবেশে বাধা দেওয়ায় এক পুলিশ কনস্টেবলকে মারধরের অভিযোগ উঠেছে। উপজেলার কনেশ্বর গ্রামের রিফাত ও হাফিজুর রহমান নামের দুই যুবক তাঁকে মারধর করেছেন বলে অভিযোগ উঠেছে।

ঘটনার পর আহত পুলিশ কনস্টেবল আরিফুর রহমানকে ডামুড্যা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে। ঘটনার পর থেকে অভিযুক্ত দুই যুবক পলাতক আছেন।

ডামুড্যা থানার পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, উপজেলার কনেশ্বর আলহাজ আলী আহম্মেদ দাখিল মাদ্রাসা কেন্দ্রে চলতি বছর জেএসসি পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হচ্ছে। শনিবার সকাল পৌনে ১০টায় রিফাত ও হাফিজুর নামের দুই যুবক পরীক্ষাকেন্দ্রের ভেতরে প্রবেশ করতে চান। এ সময় কেন্দ্রের নিরাপত্তার দায়িত্বে থাকা পুলিশ কনস্টেবল আরিফুর তাঁদের বাধা দিলে দুই পক্ষের মধ্যে কথা-কাটাকাটি হয়। একপর্যায়ে রিফাত ও হাফিজুর তাঁকে মারধর করেন। পরে অন্য পুলিশ সদস্যরা তাঁকে উদ্ধার করে ডামুড্যা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করে।

আরিফুর রহমান বলেন, ‘পরীক্ষাকেন্দ্রের আশপাশে ১৪৪ ধারা জারি থাকে। সেখানে জনসাধারণের প্রবেশ নিষিদ্ধ। নিয়ম অমান্য করে দুই যুবক সেখানে প্রবেশ করতে চাইলে আমি তাদের বাধা দিই। পরে তারা আমাকে মারধর করে পালিয়ে যায়।’

অভিযুক্ত যুবক রিফাতের বাবা মিজানুর রহমান প্রথম আলোকে বলেন, ‘আমার ছোট ছেলে এবার জেএসসি পরীক্ষা দিচ্ছে। আমি তাকে ওই পরীক্ষাকেন্দ্রে নিয়ে গিয়েছিলাম। আমার আরেক ছেলে রিফাতও সেখানে যায়। সেখানে পুলিশের সঙ্গে কথা-কাটাকাটি হলে পুলিশ আমার ছেলেকে মারধর করে। এই ঘটনা আড়াল করতে এখন আমার ছেলের বিরুদ্ধে মিথ্যা অভিযোগ আনা হচ্ছে।’

ডামুড্যা থানার পরিদর্শক (তদন্ত) এমারত হোসেন প্রথম আলোকে বলেন, পুলিশ সদস্যের ওপর হামলা করা দুই যুবকের বিরুদ্ধে মামলা করা হবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *