সরকারী সহযোগিতায় এবতেদায়ী মাদ্রাসা শিক্ষা প্রতিষ্ঠানেও ছাত্র ছাত্রীদের অংশ গ্রহন বাড়ছে

আবু রায়হান:
সরকারি ঘোষণা অনুযায়ী নতুন বছর নতুন বই। শিক্ষা প্রতিষ্টান গুলোতে বেড়েছে অভিভাবকের হাত ধরে ছাত্র ছাত্রীদের উপস্খিতি। শহরের সাথে পাল্লাদিয়ে গ্রামের অজো পাড়া গ্রামের শিক্ষা প্রতিষ্ঠানসহ এবতেদায়ী মাদ্রাসাগুলোতে সীমাহীন আনন্দ আর বাঁধভাঙ্গা উল্লাস ছোট্ট শিক্ষার্থীদের। ভীষন খুশি অবিভাবকরাও ব্যপক আমেজে তার ছোট্র সোনামনিকে নিয়ে যাচ্ছে বিদ্যালয়ে।
নতুন বই পেয়ে ব্যাপক আনন্দ আর নতুন বই এর ঘ্রান নিয়ে পড়াশোনায় মনোযোগও দিয়েছে তারা। নতুন বই এর পাতা উল্টাতে উল্টাতে বেড়েছে বিদ্যালয়ের উপস্থিতির সংখ্যাও।এমনটাই দেখা গেছে গতকাল ৫ জানুয়ারী রবিবার সকালে শেরপুর উপজেলার বিশালপুর স্বতন্ত্র এবতেদায়ী মাদ্রাসায়।
এ প্রসঙ্গে,প্রধান শিক্ষক নাজমুল হক বলেন-বিশালপুর স্বতন্ত্র এবতেদায়ী মাদ্রাসা মুলত শহর থেকে অনেক দুরে।এ এলাকার গ্রামীন সমাজের যোগাযোগ ব্যবস্থা সাথে প্লাল্লাদিয়ে চলছে শিক্ষার সচেতনতা। এক সময় বাড়ি বাড়ি গিয়ে ছাত্র ছাত্রী সংগ্রহ করতে হতো। এখন অভিভাবকরা নিজেই তাদের সন্তানদের ভর্তি করিয়ে দেয়।এ ক্ষেত্রে মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর শেখ হাসিনার সহযোগিতায় বিনা মুল্যে বই সহ অন্যান্য সহযোগিতা ছাত্র ছাত্রদের পড়াশোনায় অগ্রনী ভুমিকা পালন করছে।
এ বিশালপুর স্বতš এবতেদায়ী মাদ্রাসার সভাপতি নজরুল ইসলামসহ শিক্ষক-আরিফুল ইসলাম,জাকারিয়া,শামিম রেজা,আসলাম হোসেন বলেন-তুলনা মুলক গ্রামের শিক্ষার হার বেড়েছে সরকারী সহযোগিতার কারনেই। বিনামুল্যে বই,শিক্ষা উপকরন ও নগদ টাকার বৃত্তি কারনে হতদরিদ্র গ্রামের মানুষটি ও এখন তার সন্তান কে বিদ্যালয়ে ভর্তি করিয়ে পড়াশোনা করাচ্ছে। যার ফলে দেশের শিক্ষার হাড় বাড়ছে, পাশাপাশি এদের মধ্যে থেকেই গড়ে উঠছে আগামীর বাংলাদেশের চালিকা শক্তি।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *