একজন টিটু বাঙালী

টিটু বাঙালী (মোঃ মহিউদ্দিন শিকদার)। একজন শখের অভিনেতা। পেশায় একজন গণমাধ্যম কর্মী। তার পছন্দের কাজগুলোর মধ্যে রয়েছে বই পড়া, গান শোনা, মুভি দেখা, সুইমিং করা আর নতুন নতুন জায়গায় ঘুরে বেড়ানো। সময় পেলেই হারিয়ে যান
প্রকৃতির হাত ধরে অ্যাডভেঞ্চারে। বর্তমানে বৈশাখী টেলিভিশনের মার্কেটিং বিভাগে সিনিয়র এক্সিকিউটিভ হিসেবে সুনামের সাথে কাজ করছেন। কৈশোর বয়স তিনি ছিলেন শিল্প-সংস্কৃতির প্রতি অনুরাগী। বাংলাদেশের শস্যভান্ডার নামে পরিচিত বরিশাল জেলায়
জন্মগ্রহণ করেন ০৭ মার্চ। জগন্নাথ বিশ^বিদ্যালয় থেকে রাষ্ট্রবিজ্ঞানে ¯œাতকোত্তর শেষ করে উচ্চশিক্ষার জন্য পাড়ি দেন সুদূর ইংল্যান্ডে। লন্ডনে এডেক্্রসেল থেকে পি জি ডি এবং লিভারপুলে, লিভারপুল জন ম্যুরস্ বিশ^বিদ্যালয় থেকে এম বি এ শেষ করে আবার দেশের টানে ফিরে আসেন প্রিয় বাংলাদেশে। বাংলাদেশের খ্যাতনামা বিজ্ঞাপণ নির্মাণ প্রতিষ্ঠান সল্যুশন ৩৬০ ডিগ্রীর মাদার হরলিকস্ বিজ্ঞাপণচিত্রের মাধ্যমে টেলিভিশনে অভিনয়


শুরু করেন ২০১৬ সালের ৩০ অক্টোবর। বিজ্ঞাপণে তিনি অভিনয় করেছেন একজন আদর্শ স্বামীর চরিত্রে। সাবলীল অভিনয়ের জন্য এক বিজ্ঞাপণের মাধ্যমে খুব অল্পদিনের মধ্যেই দর্শকদের নজর কেড়ে নেন। দর্শকদের ভালোলাগা বা চাহিদা থাকলেও কর্মব্যস্ততার কারনে শখ বা ভালোলাগার অভিনয়টা নিয়মিত করা হয়ে ওঠে না। দীর্ঘ বিরতির পর তিনি একে একে অভিনয় করেন বেশ কিছু বিশেষ নাটকে। সমসাময়িক অন্যান্য নাটকগুলো থেকে তার অভিনীত নাটকগুলোর দর্শক জনপ্রিয়তা ছিলো আকাশচুম্বী। নাটকগুলোর মধ্যে যেই লাউ সেই কদু ,যেই লাউ সেই কদু ২ , বরিশাল টু ঢাকা, নায়িকার বিয়ে ২ , ভাবীর দোকান ২ও ডিজিটাল প্রতারণা। তার এই পথচলায় সবসময় উৎসাহিত করেছেন ও প্রেরণা যুগিয়েছেন স্ত্রী সানজিদা আহমেদ, শ্রদ্ধেয় বেনু শর্মা, রাশেদ সীমান্ত, রাশেদুল হক, লিটু সোলায়মানসহ আরো অনেকে শুভাকাঙ্খী। কাজের পাশাপাশি অভিনয়ের পথচলাকে আরো সহজ ও বেগবান করতে তাকে সবসময় সুযোগ ও যাবতীয় সহযোগিতা করেছেন বৈশাখী টেলিভিশনের উপ-ব্যবস্থাপনা পরিচালক ও প্রধান সম্পাদক জনাব টিপু আলম মিলন। যার কাছে তিনি আজীবন কৃতজ্ঞ।আগামী দিনের

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *