সাত দিন সচেতনতামূলক প্রচারণা

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেছেন, বিএনপির চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার শারীরিক অবস্থা নিয়ে গঠিত মেডিকেল বোর্ডের বক্তব্যের সঙ্গে বিএনপির বক্তব্যের মিল নেই। খালেদা জিয়ার শারীরিক অবস্থা নিয়ে বিএনপি রাজনীতি করছে। নতুন সড়ক পরিবহন আইন প্রসঙ্গে মন্ত্রী বলেন, আগামী সাত দিন সচেতনতামূলক প্রচারণা চালানো হবে। এ সময় কোনো পরিবহনের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের না করার জন্য তিনি নির্দেশ দিয়েছেন।

আজ শনিবার সকালে নারায়ণগঞ্জের সাইনবোর্ড এলাকায় বিআরটিএর কার্যক্রম পরিদর্শনে এসে এসব কথা বলেন ওবায়দুল কাদের।

সড়ক পরিবহনমন্ত্রী বলেন, খালেদা জিয়া শারীরিক অবস্থার এমন কোনো অবনতি হয়নি যে তাঁকে বিদেশ পাঠাতে হবে। মেডিকেল বোর্ডে খালেদা জিয়ার পছন্দের ডাক্তার রয়েছেন। সেই মেডিকেল বোর্ডের সদস্যরা বলছেন, খালেদা জিয়ার শারীরিক অবস্থা ভালো এবং তিনি সুচিকিৎসা পাচ্ছেন।

সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে মন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেন, নির্বাচন যদি সুস্থ-সুন্দর না হতো, মির্জা ফখরুলসহ বিএনপি কেন নির্বাচনে অংশগ্রহণ করেছে? বর্তমান সংসদকে যদি অবৈধ বলা হয়, সংসদে যোগ দেওয়া বিএনপির সাত সাংসদও অবৈধ। তিনি আরও বলেন, বিএনপি আন্দোলনে ব্যর্থ হয়ে নেতা-কর্মীদের চাঙা রাখতে গলাবাজি করছে। বিএনপি বারবার আন্দোলনের ডাক দেওয়ার পরও জনগণ সাড়া না দেওয়ায় আন্দোলনে ব্যর্থ, নেতৃত্বে ব্যর্থ হয়ে তারা এখন নালিশ করছে মানুষের কাছে। এটি বিএনপির একটি রোগে পরিণত হয়েছে—নালিশ করা।

মন্ত্রী বলেন, সারা দেশে তৃণমূল পর্যায়ে শুদ্ধি অভিযান চলছে। এরই মধ্যে জেলা পর্যায়ে ও তৃণমূল পর্যায়ে ভূমিদস্যু, মাদক ব্যবসায়ী, সন্ত্রাসী-চাঁদাবাজদের তালিকা তৈরি করা হয়েছে। পর্যায়ক্রমে তাদের আইনের আওতায় আনা হবে। তিনি বলেন, আওয়ামী লীগ ও সহযোগী সংগঠনের সম্মেলনে এসব ভূমিদস্যু, সন্ত্রাসী, চাঁদাবাজরা যেন স্থান না পায়, সে জন্য তৃণমূলের নেতাদের নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *