শেরপুরে জীবিত প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থীকে মৃত দেখিয়ে ভোটার লিস্ট থেকে নাম কর্তনের অভিযোগ

স্টাফ রিপোর্টার : বগুড়ার শেরপুর উপজেলার বনমরিচা গ্রামে ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনের এক সম্ভাব্য ইউপি সদস্য প্রার্থীকে মৃত বানিয়ে ভোটার তালিকা থেকে নাম কর্তনের অভিযোগ উঠেছে ওই এলাকার সাবেক মেম্বার (ইউপি সদস্য) এর বিরুদ্ধে। এ নিয়ে এলাকায় উত্তেজনা বিরাজ করছে।
ভুক্তভোগী আওয়ামী লীগ নেতা মো.বদিউজ্জামান বদি জানান, আমি গাড়ীদহ ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের ২নং ওয়ার্ড কমিটির সাধারণ সম্পাদক। বিগত দিনেও এই ওয়ার্ড থেকে নির্বাচন করেছি আগামীতে ইউপি সদস্য পদে নির্বাচন করার জন্য আশা করছি। কিন্তু সম্প্রতি উপজেলা নির্বাচন অফিসে ভোটার তালিকায় নাম যাচাই করতে গিয়ে দেখি আমার নাম মৃত হিসাবে কর্তন করা হয়েছে।
পরে খোঁজ নিয়ে দেখতে পাই এলাকার সাবেক মেম্বার আব্দুস সোবাহান এবং বর্তমান সংরক্ষিত মেম্বার হেলেনা বিবি যোগসাজশ করে ২০১৯ সালে এক মৃত ব্যক্তির নামের সাথে আমার জাতীয় পরিচয়পত্র নম্বর জুড়ে দিয়ে আমার নাম কর্তন করেছেন। এ ঘটনায় আমি নির্বাচন অফিসের পাশাপাশি শেরপুর থানায় ওই দুই জনের নামে লিখিত অভিযোগ করেছি।
এ ব্যাপারে অভিযুক্ত গাড়ীদহ ইউনিয়নের ২নং ওয়ার্ডের সাবেক সদস্য মো. আব্দুস সোবাহান জানান, আমি তার নাম কাটার জন্য কোন সুপারিশ করিনি। নির্বাচনকে সামনে রেখে ফায়দা হাসিল করার জন্য আমার বিরুদ্ধে মিথ্যা অভিযোগ আনা হয়েছে।
১নং সংরক্ষিত মহিলা ইউপি সদস্য মোছা. হেলেনা বিবি জানান, ভোটার তালিকায় নাম কর্তনের জন্য যে সুপারিশ আমার নামে করা হয়েছে আমি তার সাথে জড়িত নই। দোষীদের শাস্তি দাবী করছি।
এ ব্যাপারে শেরপুর উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তা মোছা. আছিয়া খাতুন জানান, ২০১৭ সালে বনমরিচা গ্রামের আব্দুল মোতালেব মৃত্যুবরণ করেন। কিন্তু ভুলক্রমে তার জাতীয় পরিচয়পত্র নম্বরের জায়গায় বদিউজ্জামানের নম্বর থাকায় তালিকা থেকে নাম কেটে গেছে। একটি ডিজিট ভুল হওয়ায় এমন সমস্যা হয়েছে। আমরা আবারো ওই সম্ভাব্য ইউপি সদস্য প্রার্থীর নাম প্রতিস্থাপনের জন্য সুপারিশ করেছি। আশা করছি কোন সমস্যা হবে না তিনি নির্বাচনে অংশগ্রহণের সুযোগ পাবেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *