ঠাকুরগাঁওয়ে সহায় সম্বল হারিয়ে বৃদ্ধ মা রাস্তায় সঙ্গাহীন!

ঠাকুরগাঁও প্রতিনিধি :  ঠাকুরগাঁওয়ের হরিপুর উপজেলায় সহায় সম্বল হারিয়ে বৃদ্ধ মাকে রাস্তায় ফেলে রেখে দেয় লোভী এক নরপশু। সঙ্গাহীন অবস্থায় উদ্ধার করে হাসপাতালে ভর্তি করে স্থানীয়রা। খবর পেয়ে অসহায় বৃদ্ধ ওই মায়ের পাশে দাঁড়িয়েছে ঠাকুরগাঁও রিপোর্টার্স ইউনিটি।

বুধবার দুপুরে জেলার হরিপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে রিপোর্টার্স ইউনিটি’র নেতারা উপস্থিত হয়ে সহযোগীতার হাত বাড়িয়ে দেন। এই খবর পেয়ে ছুটে আসেন উপজেলা নির্বাহী অফিসারসহ থানা পুলিশের কর্মকর্তারা।
এ সময় উপস্থিত ছিলেন ঠাকুরগাঁও রিপোর্টার্স ইউনিটি’র উপদেস্টা সদস্য ও জেলা আ’লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক মাজাহারুল ইসলাম সুজন, সাধারণ সম্পাদক আব্দুল লতিফ লিটু, সহ-সভাপতি রেজাউল করিম, অর্থ সম্পাদক জিয়াউর রহমান বকুল, উপজেলা নির্বাহী অফিসার আব্দুল করিম, উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান আব্দুল কাইয়ুম পুষ্পসহ অনেকে।

জানা যায় জেলার হরিপুর উপজেলার বকুয়া ইউনিয়নের মৃত কেংকর আলীর স্ত্রী ফাতেমা বেগম (৭০) এক ছেলেকে নিয়ে বসবাস করতেন নারগুন গ্রামে। একমাত্র ছেলে আব্দুস ছালাম (২৫) কাজের সন্ধ্যানে ঢাকায় গিয়ে মারা যান। পরে প্রতিবেশী তোফায়েল হোসেন ওই বৃদ্ধ নারীকে প্রলোভন দেখিয়ে বাকি জীবন দেখভালের কথা বলে বসতভিটাসহ ৬ বিঘা জমি সু-কৌশলে রেজিষ্ট্রি করিয়ে নেয়। বৃদ্ধ ওই মা বিভিন্ন দফতরে বার বার ধন্যা দিয়েও কোন সুরাহা পায়নি।

পরে গুরুত্বর অসুস্থ হয়ে গেলে গত ১৫ ডিসেম্বর রাতে অসুস্থ্য অবস্থায় ওই ইউনিয়নের ঘাগড় তলা এলাকায় রাস্তায় ফেলে দেয় তোফায়েলসহ তার পরিবারের লোকজন। পরে এলাকাবাসি ভোড় রাতে তাকে দেখতে পেয়ে সঙ্গাহীন অবস্থায় উদ্ধার করে হরিপুর স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করে। দীর্ঘ এক মাস ধরে হাসপাতালে ভর্তি থাকলে কেউ তার খবর নেয়নি। তথ্য পেয়ে ছুটে যান ঠাকুরগাঁও রিপোর্টার্স ইউনিটি’র নেতারা এবং আর্থিক সহায়তার হাত বাড়িয়ে দেন। অপর দিকে এই তথ্য পেয়ে ছুটে আসেন উপজেলা নির্বাহী অফিসারসহ পুলিশ সদস্যরা। এ সময় তার বাকি জীবন দেখভালসহ মালিকানা জমি উদ্ধারের প্রতিশ্রæতি দেন কর্মকর্তারা।

বৃদ্ধ মা ফাতেমা বেগম অভিযোগ করে বলেন, আমি বৃদ্ধ মানুষ, কি ভাবে যে আমার কাছ থেকে মালিকানা জমি গুলো রেজিষ্ট্র করে নিয়েছে, আমি তা বলতেই পারি না। পরে বিষয়টি জানতে পেরে বিভিন্ন দফরে গিয়েছি কিন্তু কোন সহযোগিতা পাইনি। ওই কেঁদে কেঁদে বলে বলেন আপনারা আমার পাশে দাঁড়িয়েছেন এ জন্য আল্লাহর কাছে সব সময় প্রার্থণা করবো।
ঠাকুরগাঁও রিপোর্টার্স ইউনিটি’র উপদেষ্টা সদস্য জেলা আ’লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক মাজাহারুল ইসলাম সুজন জানান, আমরা সংগঠনের পক্ষ থেকে ফাতেমা বেগমকে আর্থিক সহযোগিতা দিতে এগিয়ে এসেছি। আমাদের সাহায্যের কথা শুনে উপজেলা নির্বাহী অফিসার ছুটে এসেছেন। তিনি আশস্ত করেছেন তার জমি উদ্ধারসহ বাকি জীবনের চলার জন্য প্রয়োজনি ব্যবস্থা গ্রহনের কথা।

হরিপুর স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের আবাসিক মেডিক্যাল অফিসার ডাঃ মোঃ আসাদুজ্জামান জানান ফাতেমা বেগম বলেন তিনি এখন অনেকটাই সুস্থ্য। সার্বক্ষনিক ওনার দেখভাল করছি।
এ বিষয়ে হরিপুর উপজেলার নির্বাহী অফিসার মোঃ আব্দুল করিম জানান, তিনি পুরোপুরী সুস্থ্য হলে আমরা জমি উদ্ধারের বিষয়টিসহ তার বাকি জীবন চলার ব্যাপারে প্রয়োজনিয় ব্যবস্থা গ্রহণ করবো।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *