প্রধানমন্ত্রী উদ্ভোধনের অপেক্ষায় ভুমিহীনদের স্বপ্নের বাসগৃহে

নওগাঁ থেকে মোঃ আনোয়ার মেহেদী ঃ নওগাঁ জেলার গৃহহীন ও ভুমিহীন ১০৫৬টি পরিবারের স্বপ্ন পুরুন হতে যাচ্ছে। চলতি অর্থ বছরে গ্রামীন অবকাঠামো সংস্কার (কাবিটা) কর্মসুচির আওতায় মুজিব শতবর্ষে ভূমিহীন ও গৃহহীন ‘ক’ শ্রেণীর দুর্যোগ সহনীয় বাসগৃহ নির্মান প্রকল্প বাস্তবায়নের লক্ষ্যে প্রধানমন্ত্রীর ত্রান মন্ত্রনালয়ের আওতায় ভুমিহীন ও গৃহহীন পরিবারের জন্য সরকারি খাস জমিতে গৃহনির্মাণের কাজ পুরোদমে চলছে।

গৃহহীনরা তাদের আকাঙ্খিত ঘর পাওয়ার জন্য শুভ দিনের অপেক্ষায় আছেন। ‘প্রধানমন্ত্রীর অঙ্গীকার সবার জন্য বাসস্থান’ এই শ্লোগানকে বাস্তবায়নের জন্য নওগাঁর ১১টি উপজেলায় গৃহহীন ও ভূমিহীন মানুষদের জন্য প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার আবাসন উপহার হিসেবে প্রদত্ত ২১.১২ একর খাস জমিতে ২ শতাংশ করে খাস জমি তাদের কবুলিয়ত দলিল করে দেওয়া হবে বলে জেলা প্রশাসন সুত্রে জানা যায়।

গৃহনির্মাণের কাজ গুলি করছে জেলা প্রশাসন ও উপজেলা প্রশাসনের কর্মকর্তাগন। সরেজমিনে গিয়ে জানা যায়, প্রতিনিয়ত এ কাজগুলির মনিটরিং করছে উচ্চ পর্যায়ের প্রশাসনিক কর্মকর্তাগন ফলে ঘর নির্মানে কোন অনিয়ম হয়নি নির্মিত ঘর গুলি টিকসই ও মজবুত হয়েছে। এ বিষয়ে উপকারভোগী পতœীতলা উপজেলার চকগোবিন্দ ইউনিয়নের কৃষনপুর গ্রামের মিনু হাসদা ও রানীনগর ইউনিয়নের রাজাপুর ইউনিয়নের খট্টেশর গ্রামের ফারজান বিবি বলেন, আমাদের কোন থাকার জায়গা ছিলনা।

প্রধানমন্ত্রীর উপহার ঘরের তালিকায় আমাদের নাম থাকার কথা জানতে পেরে আমরা খুবই আনন্দিত। এ বিষয়ে জেলা ত্রান ও পূর্নবাসন কর্মকর্তা মোঃ কামরুল আহসান জানান, প্রতিটি বাস গৃহে অবকাঠামোতে থাকছে ইটের ও টিনের তৈরী ২টি কক্ষ সাথে থাকছে টিউবয়েল, রান্না ঘর ও বাথরুম। প্রতিটি বাসগৃহে ব্যয় হচ্ছে ১,৭১,০০০/- টাকা এবং জেলায় সর্ব মোট ব্যয় হচ্ছে ১৮,০৫,৭৬,০০০/- এ বিষয়ে নওগাঁ জেলা প্রশাসক মোঃ হারুন-অর-রশীদ বলেন, নওগাঁ জেলায় বরাদ্দপ্রাপ্ত ১০৫৬টি ঘরের সবগুলোতেই দ্রæতগতিতে কাজ চলছে এবং কাজের ৭৫% কাজ সম্পন্ন হয়েছে যা আগামী ১৫ জানুয়ারী ২০২১ এর মধ্যে সকল কাজ সমাপ্ত হবে বলে আশা করা যাচ্ছে।

গৃহনির্মান সম্পন্ন হলেই মাননীয় প্রধানমন্ত্রী কর্তৃক উদ্ভোধনের মাধ্যমে উপকারভোগীদের মাঝে ঘরগুলো হস্তান্তর করা হবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *