মির্জা ফখরুলকে প্রত্যাখান করেছে ঠাকুরগাঁওয়ের মানুষ -জাহাঙ্গীর কবির নানক

ঠাকুরগাঁও প্রতিনিধি : আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক এ্যাডভোকেট জাহাঙ্গীর কবির নানক বলেছেন, বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরকে ঠাকুরগাঁওয়ের মানুষ প্রত্যাখান করেছেন। তিনি বলেন এমন এলাকায় এসেছি সেখানে (ঠাকুরগাঁও) বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীমের জন্ম। তিনি এলাকার মানুষকে সুচিন্তিত মতামত দিয়ে মির্জা ফখরুল ও বিএনপির রাজনীতিকে প্রত্যাখান করায় ধন্যবাদ জানান। তিনি এখন বগুড়ায় গিয়ে আশ্রয় নিয়েছেন । এর চেয়ে লজ্জার আর কিছু থাকতে পারে না। কিন্তু উনার লজ্জা পায় না। উনাদের ভেতরে লাজুকতা নেই। বিএনপির দুই কান কাটা বলেও উল্লেখ করেন তিনি।

শুক্রবার (৬ ডিসেম্বর) বিকেলে জেলা পরিষদ অডিটরিয়ামে জেলা আওয়ামী লীগের ত্রি-বার্ষিক সম্মেলনে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন তিনি।
সম্মেলনে বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন দলের রংপুর বিভাগের দায়িত্বপ্রাপ্ত সাংগঠনিক সম্পাদক বি এম মোজাম্মেল হক, আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক ও নৌ পরিবহন প্রতিমন্ত্রী খালিদ মাহমুদ চৌধুরী, আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় প্রচার সেলের সহ-সম্পাদক নাইমুজ্জামান মুক্তা ও সংরক্ষিত মহিলা আসনের সংসদ সদস্য জাকিয়া তবাসসুম জুঁই প্রমুখ।

সম্মেলনে সাংগঠনিক রিপোর্ট উপস্থাপন করেন জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মুহাম্মদ সাদেক কুরাইশী। শোক প্রস্তাব পাঠ করেন জেলা আওয়ামী লীগের দফতর সম্পাদক জুলফিকার আলী ভূট্টো। সভাপতিত্ব করেন ঠাকুরগাঁও-২ আসনের সংসদ সদস্য ও জেলা আওয়ামী লীগের বিদায়ী সভাপতি আলহাজ্ব দবিরুল ইসলাম।

বিএনপির সমালোচনা করে এ সময় তিনি আরও বলেন, যার এক কান কাটা সে হাঁটে রাস্তার এক পাশ দিয়ে। আর যার দুই কান কাটা তারা লজ্জায় মাথা খেয়ে সে হাটে রাস্তার মাঝখান দিয়ে। বিএনপির দুই কান কাঁটা। ওদের নেতা গ্রেফতার হয় দূরর্নীতির দায়ে। ওদের নেতা খালেদা জিয়া আইনী সকল লড়াই করার পরও প্রমাণ করতে পারেননি তিনি দূর্নীতি করেননি।

ঠাকুরগাঁওয়ের নেতা-কর্মীদের উদ্দেশ্যে নানক বলেন, কোন কমিটিতে অনুপ্রবেশকারী ঢুকতে পারবে না। অনুপ্রবেশকারীদের ঝেটিয়ে বের করে দিতে হবে। দলে ত্যাগী নেতাদের জায়গা করে দেওয়ার জন্য এ সময় তিনি তৃণমূলের নেতা-কর্মীদের আহ্বান জানিয়ে দলে স্বজন প্রীতি না করারও নির্দেশনা দেন তিনি। তিনি বলেন, স্বজন প্রীতি করে আওয়ামী লীগ চলবে না। তবে সমাজের ভাল মানুষের জন্য, সমাজে যাদেও গ্রহনযোগ্যতা আছে তাদের জন্য দলের দরজা খোলা রাখতে হবে।

তিনি বলেন, আমরা একটি দাওয়াত নিয়ে আপনাদের কাছে এসেছি। আগামী ২০ ও ২১ ডিসেম্বর আওয়ামী লীগের জাতীয় সম্মেলনে আপনাদের আমন্ত্রন জানিয়েছেন মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। আমরা সেই দাওয়াত বাহক হিসেবে বহন করে নিয়ে এসেছি।

বিএম মোজাম্মেল হক বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরের দিকে ইঙ্গিত করে বলেন,‘খালেদা জিয়ার পুত্র তারেক রহমান বিএনপি ক্ষমতায় থাকা কালে ২ হাজার কোটি টাকা বিদেশে পাচার করেছে। তারা স্বাধীনতা চাননি। স্বাধীনতা বিরোধী শক্তিকে একত্রিত করে শেখ হাসিনার উন্নয়ন অগ্রগতিকে বানচাল করতে চাচ্ছেন।

আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক ও নৌ পরিবহন প্রতিমন্ত্রী খালিদ মাহমুদ চৌধুরী বলেন, বিশৃঙ্খলা চালানোর জন্য একটি দল চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে। যার নেতৃত্ব দিয়ে যাচ্ছেন ঠাকুরগাঁও থেকে বিতারিত একজন মানুষ। সমগ্র বাংলাদেশকে যিনি অস্থিতিশীল করার চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছেন। বিএনপি নামক একটি চক্র এদের নির্মূল করতে হবে বলেও তিনি এ সময় উল্লেখ করেন। তিনি বলেন, বাংলাদেশকে দূর্নীতি, জঙ্গী, ক্ষুধা ও দারিদ্রমুক্ত করেছেন শেখ হাসিনা।

পরে সম্মেলনের দ্বিতীয় অধিবেশনে মুহাম্মদ সাদেক কুরাইশীকে সভাপতি ও দীপক কুমার রায়কে সাধারণ সম্পাদক করে ৭৫ সদস্যের কমিটি ঘোষনা করা হয়।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *