ধুনটে লটারীর মাধ্যমে ধান ক্রয়: সুযোগ পেল ১৭৭০ জন কৃষকের

ধুনট (বগুড়া) প্রতিনিধি:
বগুড়ার ধুনট উপজেলায় লটারীর মাধ্যমে আমন ধান ক্রয় কার্যক্রম শুরু করেছে উপজেলা প্রশাসন ও খাদ্য বিভাগ। আর এতে সুযোগ পেল উপজেলার ১ হাজার ৭৭০ জন কৃষকের। বৃহস্পতিবার ধুনট উপজেলা পরিষদ মিলনায়তনে লটারী কার্যক্রম পরিচালনা করেন ধুনট উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা রাজিয়া সুলতানা। লটারীর মাধ্যমে ধুনট পৌর এলাকা সহ ১০টি ইউনিয়নের ২৪ হাজার ৯৯২ জন কৃষকের মধ্যে মাত্র ১ হাজার ৭৭০ জন নির্বাচিত হয়েছেন। তারা প্রত্যেকে খাদ্য গুদামে সরকার নির্ধারিত ২৬ টাকা কেজি দরে ১ মেট্রিকটন করে ধান বিক্রি করতে পারবেন। এদিকে এই উপজেলায় কৃষিকার্ডধারী কৃষকের সংখ্যা রয়েছে ৫২ হাজার। তন্মধ্যে ৩৬ হাজার কৃষক ১৫ হাজার ৭২০ হেক্টর জমিতে আমন ধান চাষ করেছিলেন।
ধুনট উপজেলা উপ-সহকারী কৃষি কর্মকর্তা আব্দুস সোবাহান জানান, সরকারি মূল্যে খাদ্য গুদামে ধান বিক্রি করবেন এমন ২৪ হাজার ৯৯২ জন কৃষক উপজেলা কৃষি অফিসে আবেদন করেছিলেন। সেই তালিকার মধ্য থেকে লটারীর মাধ্যমে ১ হাজার ৭৭০ জন কৃষক নির্বাচিত হয়েছেন।
ধুনট উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা রাজিয়া সুলতানা বলেন, কৃষক যাতে ধানের ন্যায্য মূল্য পায় এজন্য সরকার সরাসরি কৃষকের কাছ থেকে ধান ক্রয়ের উদ্যোগ নিয়েছেন। সরকারের উদ্যোগ বাস্তবায়ন করতে লটারীর মাধ্যমে ধান ক্রয় করা হচ্ছে।
লটারী অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন, ধুনট পৌরসভার মেয়র এজিএম বাদশাহ, ধুনট থানার ওসি ইসমাইল হোসেন, ধুনট উপজেলা খাদ্য নিয়ন্ত্রক (অতিঃ) সেকেন্দার রবিউল ইসলাম, ধুনট খাদ্য গুদামের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা কামরুল ইসলাম, এলাঙ্গী ইউপি চেয়ারম্যান এমএ তারেক হেলাল, চিকাশী ইউপি চেয়ারম্যান নাজমুল কাদির শিপন, ধুনট সদর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান লাল মিয়া প্রমূখ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *