দুর্গোৎসব উপলক্ষে মন্দিরের পুরোহিতদের মাঝে যমুনা ফাউন্ডেশনের শারদ উপহার বিতরণ

দ্বীন মোহাম্মাদ সাব্বির:

হিন্দু ধর্মাবলম্বীদের প্রধান ধর্মীয় উৎসব শ্রী শ্রী দূর্গাপূজা উপলক্ষে সিরাজগঞ্জ এই প্রথম যমুনা ফাউন্ডেশনের পক্ষ থেকে পৌরসভার ৮৮ জন পুরোহিতদের মাঝে শারদ উপহার সামগ্রী ও নগদ অর্থ বিতরণ করা হয়েছে।

বৃহস্পতিবার (২২ অক্টোবর) বিকেলে যমুনা ফাউন্ডেশনের আয়োজনে সিরাজগঞ্জ শহরের মুজিব সড়কস্থ কেন্দ্রীয় মন্দির শ্রী শ্রী মহাপ্রভুর আখড়ায় পৌরসভার সম্মানিত পুরোহিতগণদের মাঝে শারদ উপহার ও নগদ অর্থ তুলে দেন প্রধান অতিথি সিরাজগঞ্জ-২ (সদর-কামারখন্দ) আসনের সংসদ সদস্য ও জেলা আওয়ামীলীগের ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক অধ্যাপক ডাঃ মোঃ হাবিবে মিল্লাত মুন্না।

যমুনা ফাউন্ডেশনের আহবায়ক সুজন দেবের সভাপতিত্বে ও সদস্য সচিব ইউসুফ দেওয়ান রাজুর পরিচালনায় আয়োজিত অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য সিরাজগঞ্জ উইমেন চেম্বার অব কমার্স অ্যান্ড ইন্ড্রাস্টির প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি ও এফবিসিসিআইয়ের পরিচালক মিসেস শারিতা মিল্লাত রিতু, সিরাজগঞ্জ জেলা আওয়ামীলীগের তথ্য ও গবেষণা বিষয়ক সম্পাদক আনোয়ার হোসেন ফারুক, সিরাজগঞ্জ প্রেসক্লাবের সভাপতি হেলাল উদ্দিন, জেলা যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক মোঃ একরামুল হক, জেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতি নূরুল ইসলাম সজল, সিরাজগঞ্জ জেলা পূজা উদযাপন পরিষদের সভাপতি সন্তোষ কুমার কানু, সাধারণ সম্পাদক সঞ্জয় সাহা, সদর উপজেলা পূজা উদযাপন পরিষদের সভাপতি বাবু বিজয় দত্ত অলোক, শহর পূজা উদযাপন পরিষদের সভাপতি হীরক গুণ, সাধারণ সম্পাদক রিংকু কুণ্ডু প্রমুখ।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন যমুনা ফাউন্ডেশনের যুগ্ম-আহবায়ক জিয়া মুন্সি, আলাউদ্দিন আহমেদ শাকিল, মাহমুদুল হাসান শশী, ইমতিয়াজ আহমেদ মিল্লাত, ইশতিয়াক আহমেদ তমালসহ যমুনা ফাউন্ডেশনের অন্যান্য সদস্যরা।

অনুষ্ঠানে ডাঃ মিল্লাত এমপি বলেন, ধর্ম যার যার উৎসব সবার। মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনার মতো মানুষ আছেই বলে বাংলাদেশে সকল ধর্মকে সমান গুরুত্ব দেওয়া হয়। সকল ধর্মের মানুষকে ভালোবাসা ও গুরুত্ব দেওয়া আমাদের দায়িত্ব। সিরাজগঞ্জের সকল স্থানে যেন হিন্দু ধর্মাবলম্বী মানুষজন সুন্দরভাবে তাদের পূজা উদযাপন করতে পারে সেই দিক-নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে। যমুনা ফাউন্ডেশনের প্রতিটি সদস্যই সকল ধর্মের মানুষকে সাহায্য করছে। মানুষকে সেবা করাই হোক প্রতিটি ধর্মের মানুষের প্রধান লক্ষ্য, এটাই প্রত্যাশা।

এ সময় যমুনা ফাউন্ডেশনের আহবায়ক সুজন দেব বলেন, যমুনা ফাউন্ডেশনের পক্ষ থেকে মন্দিরের পুরোহিতদের জন্য এই প্রথম ব্যতিক্রমী আয়োজন করা হয়েছে। শ্রদ্ধেয় পুরোহিতদের সম্মাননা দেয়া আমাদের সকলের দায়িত্ব ও কর্তব্য। সেই দায়িত্ববোধ থেকেই আমাদের ফাউন্ডেশন থেকে প্রত্যেক পুরোহিতকে একটি পাঞ্জাবি, ধুতি, ও কৃষ্ণ নামাবলি এবং এমপি মহোদয়ের পক্ষ থেকে নগদ এক হাজার টাকা করে দেয়া হয়েছে। আগামীতেও এই ধরনের উদ্যোগ অব্যাহত থাকবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *