ঠাকুরগাঁও প্রতিনিধি :  সাংবাদিকদের উপর সন্ত্রাসী হামলার প্রতিবাদ ও হামলাকারীদের দ্রুত গ্রেফতারের দাবিতে জেলা প্রশাসকের কাছে স্মারকলিপি প্রদান করা হয়েছে।

বুধবার দুপুরে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বরাবরে এ স্মারকলিপি জেলা প্রশাসক ড. কামরুজ্জামান সেলিমের হাতে তুলে দেন ঠাকুরগাঁও রিপোর্টার্স ইউনিটি’র নেতারা।
জাসদ রবের জেলা সভাপতি মনসুর আলী ও দৈনিক দিনকালের সাংবাদিক পরিচয়দানকারী যুবদল কর্মী লুৎফর রহমান মিঠুর সন্ত্রাসী হামলার শিকার হন কয়েকজন সাংবাদিক। তাদের বিরুদ্ধে ৩৬৫, ৩২৬ ও ৩০৭ ধারায় সদর থানায় ৩টি মামলা দায়ের হলেও অজ্ঞাত কারণে তারা ঘুরে বেড়াচ্ছে।

 

স্মারকলিপি প্রদান কালে উপস্থিত ছিলেন ঠাকুরগাঁও রিপোর্টার্স ইউনিটির সভাপতি এমদাদুল ইসলাম ভূট্টো, সহঃ সাধারণ সম্পাদক মোঃ আসাদুজ্জামান আসাদ, দপ্তর সম্পাদক জয় মহন্ত অলক, প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক রেদওয়ানুল হক মিলন, তথ্য ও গবেষণা সম্পাদক সোহেল রানা সাঈদ, সদস্য এস এম মুক্তাদিরুজ্জামান রাসেলসহ অন্যান্যরা।

 

এসময় ঠাকুরগাঁও রিপোর্টার্স ইউনিটির নেতৃবৃন্দ সাংবাদিকদের উপর হামলার ঘটনায় সন্ত্রাসীদের দ্রুত আইনের আওতায় এনে দৃষ্টান্ত মুলক শাস্তির দাবি জানান।

ঠাকুরগাঁও জেলা প্রশাসক ড. কে এম কামরুজ্জামান সেলিম বলেন, রিপোর্টার্স ইউনিটির নেতৃবৃন্দের স্মারকলিপিটি দ্রুত প্রেরণ করা হবে। সংগঠনের পক্ষ থেকে স্মারকলিপিটি স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বরারবে প্রদান ছাড়াও সরকারের বেশকয়টি দপ্তরে প্রদান করা হয়।

 

উল্লেখ্য, গত ১৮ই মার্চ ২০২১ ইং তারিখে ঠাকুরগাঁও পুলিশ সুপারের কার্যালয়ে তুচ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্র করে ঠাকুরগাঁও রিপোর্টার্স ইউনিটি’র সভাপতি এমদাদুল ইসলাম ভূট্টো, সাঃ সম্পাদক আবদুল লতিফ লিটু, দপ্তর সম্পাদক জয় মহন্ত অলকের উপর হামলা চালায় মনসুর আলীর নেতৃেত্ব একদল সন্ত্রাসী। পরে পুলিশ সুপারের কার্যালয়ের সামনে সংগঠনের সভাপতি ও দপ্তর সম্পাদক এর উপরে দ্বিতীয় দফায় হামলা চালায় মনসুর আলী ও তার সন্ত্রাসী বাহিনী, এ ঘটনার পরে আবারো ঠাকুরগাঁও নরেশ চৌহান সড়কের সময় টিভির প্রতিনিধির অফিসে সন্ত্রাসী হামলা চালায় মনসুর আলী, লুৎফর রহমান মিঠুর নেতৃত্বে অন্যান্য সন্ত্রাসীরা।

 

ঘটনার দিন রাতে সিসি টিভির ফুটেজ দেখে উল্লেখিত সন্ত্রাসীদের নামে ঠাকুরগাঁও রিপোর্টার্স ইউনিটি নেতৃবৃন্দ ও অফিসে হামলার ঘটনায় সদর থানায় পৃথক ৩ টি মামলা দায়ের করে।

Spread the love
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

By Editor

Leave a Reply