হাসান চৌধুরী: সিরাজগঞ্জের বেলকুচিতে অপহরণের ৭ দিনেও উদ্ধার হয়নি কিশোরী শারমিন খাতুন (১৫)। অপহ্নত শারমিন বেলকুচি উপজেলার রাজাপুর ইউনিয়নের রাজাপুর পশ্চিম পাড়া গ্রামের সাখাওয়াত মোল্লার মেয়ে। তাকে না পেয়ে স্বজনদের মধ্যে চলছে উৎকন্ঠা। এদিকে এ ঘটনায় কিশোরীর বাবা বেলকুচি থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করে প্রতিপক্ষের হুমকিতে আরো নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছে।

অপহ্নত কিশোরীর বাবা সাখাওয়াত মোল্লা অভিযোগ করে জানান, বাড়ির পাশ্ববর্তী খোদা বক্সের ছেলে জুয়েল রানা (৩৫) শারমিনকে প্রায় দিন উত্যাক্ত করতো। গত ১ এপ্রিল দুপুরে শারমিন বাড়ির বাইরে বসে ছিলো। সেখানে আগে থেকে ওৎ পেতে থাকা জুয়েল রানা শারমিনের মুখ চেপে ধরে। এসময় শারমিনের চিৎকারে তার মা ও বাড়ির আশপাশের লোকজন ঘটনাস্থলে ছুটে আসলে জুয়েল রানা দ্রুত একটি সিএনজি করে শারমিনকে জোর পূর্বক অপহরন করে নিয়ে যায়। তাৎক্ষনিক ঘটনাটি তার পরিবারকে অবগত করা হলেও শারমিনকে উদ্ধার করা সম্ভব হয়নি। এরপর অপহরনের ঘটনায় বেলকুচি থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দাখিল করা হয়। অভিযোগ দাখিলের পর থেকে জুয়েল রানার পরিবার হুমকী দিয়ে আসছে। এ অবস্থায় আমি আমার পরিবার নিয়ে নিরাপত্তা হীনতায় ভুগছি।

শারমিনের মা আয়শা সিদ্দিকা জানান, আমার চোখের সামনে থেকে আমার মেয়েকে অপহরন করে নিয়ে গেছে জুয়েল। আমার মেয়ে জীবিত আছে না মৃত তাও জানি না।

এ বিষয়ে জুয়েল রানার বাড়িতে গিয়ে কাউকে খুঁজে পাওয়া যায়নি। ঘরে তালা ঝোলানো রয়েছে। কিছুক্ষন পর জুয়েল রানার সৎ মা খালেদা বেগম এসে বলেন, জুয়েল আমাদের কথা শোনে না। বিষয়টি মিমাংসার চেষ্টা চলছে। স্থানীয় ইউপি সদস্যকে বিষয়টি অবগত করা হয়েছে।

এদিকে রাজাপুর পশ্চিম পাড়া গ্রামের ইউপি সদস্য আশরাফুল ইসলাম এ বিষয়ে জানান, অপহ্নত শারমিন খাতুনের বাবা ঘটনাটি আমাকে জানিয়েছেন। আমার মেয়ে অসুস্থতার জন্য হাসপাতালে ব্যস্ত ছিলাম। এজন্য জুয়েলের পরিবারের সাথে কথা বলতে পারিনি।

বিষয়টি নিয়ে বেলকুচি থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) এনামুল হক বলেন, শারমিন খাতুনকে অপহরন করা হয়েছে বলে তার বাবা থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছেন। অভিযোগের প্রেক্ষিতে গত সোমবার আমি ঘটনাস্থলে গিয়েছিলাম। শারমিনকে হাজির করতে তার পরিবারকে বলে এসেছি। বুধবারের মধ্যে তাকে হাজির করতে না পারলে ওসি স্যারের সাথে কথা বলে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।

Spread the love
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

By Editor

Leave a Reply