নিয়ামতপুর (নওগাঁ) প্রতিনিধিঃ অনেক জল্পনা কল্পনা শেষে নওগাঁর নিয়ামতপুর উপজেলা আওয়ামী লীগের ত্রি-বার্ষিক সম্মেলন অনুষ্ঠিত হচ্ছে আগামীকাল (৩০ মার্চ) মঙ্গলবার। এ সম্মেলনকে ঘিরে এখন উজ্জীবিত তৃণমূলের কর্মী সমর্থক ও পদপ্রত্যাশীরা।

সম্মেলন সফল করতে নেয়া হয়েছে দলীয় নানান প্রস্তুতি। এর আগে গত ২০১৬ সালে সর্বশেষ উপজেলা আওয়ামী লীগের কাউন্সিল অনুষ্ঠিত হয়েছিল। অর্থাৎ দীর্ঘ সাড়ে চার বছর পর অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে এ সম্মেলন। দলীয় সূত্র জানায়, আগামী ৭ মার্চের মধ্যে ক্ষমতাসীন দলের দেশের জেলা-উপজেলার সব সাংগঠনিক ইউনিটের মেয়াদ উত্তীর্ণ কমিটি ভেঙে কাউন্সিলের মাধ্যমে নতুন কমিটি গঠনের জোর তাগিদ দেয় কেন্দ্র। ইতি মধ্যে উপজেলার আটটি ইউনিয়নের মধ্যে সাতটি ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সম্মেলন সম্পূর্ণ হলেও সদর ইউনিয়নের সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়নি। উপজেলা সম্মেলনের দিনেই সদর ইউনিয়নের সম্মেলন অনুষ্ঠিত হবে। যে সমস্ত ইউনিয়নের সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়েছে সেগুলোর কমিটি পূর্ণাঙ্গ করা হয়নি এখন পর্যন্ত।

এদিকে উপজেলা সম্মেলনে দলের সভাপতি-সম্পাদক পদ পেতে যারা আলোচনায় রয়েছেন তারা হলেন- উপজেলা আওয়ামী লীগের বর্তমান সভাপতি ও সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান আলহাজ্ব এনামুল হক, সহ-সভাপতি বাবু ঈশ্বর চন্দ্র বর্মন, সিরাজুল ইসলাম, বর্তমান সাধারণ সম্পাদক আলহাজ্ব আবুল কালাম আজাদ, সাংগঠনিক সম্পাদক আব্দুর রহমান,

এছাড়া সাধারণ সম্পাদক পদে বর্তমান কমিটির যুগ্ন সাধারণ সম্পাদক ও উপজেলা চেয়ারম্যান ফরিদ আহমেদ, এক সময়ের রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের তুখোর ছাত্র নেতা রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক, নিয়ামতপুর উপজেলা আওয়ামীলীগের সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক ও নওগাঁ জেলা আওয়ামীলীগের অন্যতম সদস্য আবেদ হোসেন মিলন, সদর ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সভাপতি ও সদর ইউনিয়ন চেয়ারম্যান আলহাজ্ব বজলুর রহমান নঈম, সাধারণ সম্পাদক জাহিদ হাসান বিপ্লবের নাম শোনা যাচ্ছে।

এদিকে ৩০ মার্চ সকাল ১০টায় নিয়ামতপুর সরকারী কলেজ মাঠে অনুষ্ঠেয় এ সম্মেলনে নিয়ামতপুর উপজেলা আ.লীগ সভাপতি সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান আলহাজ্ব এনামুল হকের সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থাকার কথা রয়েছে আ.লীগের কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক এস,এম কামাল হোসেনের। সম্মেলনের উব্দোধন করবেন নওগাঁ জেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি, নওগাঁ সদর আসনের সাবেক সংসদ সদস্য ও বীর মুক্তিযোদ্ধা আব্দুল মালেক। প্রধান বক্তা হিসাবে বক্তব্য রাখার কথা রয়েছে খাদ্যমন্ত্রী নওগাঁ জেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক বীর মুক্তিযোদ্ধা সাধন চন্দ্র মজুমদার এমপি। এছাড়া বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত থাকবেন বাংলাদেশ আওয়ামীলীগের কেন্দ্রীয় কমিটির সাংস্কৃতিক বিষয়ক সম্পাদক অসীম কুমার উকিল এমপি, স্বাস্থ্য ও জনসংখ্যা বিষয়ক সম্পাদক ডাঃ রোকেয়া সুলতানা, সদস্য এ্যাডভোকেট নুরুল ইসলাম ঠান্ডু, নওগাঁ জেলা আওয়ামীলীগের যুগ্ন সাধারণ সম্পাদক শহিদুজ্জামানসরকার এমপি, মহাদেবপুর উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি ছলিম উদ্দিন এমপি, যুব ও ক্রীড়া সম্পাদক ব্যারিষ্টার নিজাম উদ্দিন জলিল জন এমপি, রানীনগর উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি আনোয়ার হোসেন হেলাল এমপি ও আ.লীগের অন্যান্য নেতৃবৃন্দ।

সম্মেলনের বিষয়ে উপজেলা আ.লীগ সভাপতি আলহাজ্ব এনামুল হক বলেন, পারস্পরিক মতবিরোধ ভুলে সবাইকে নিয়েই এক সাথে কাজ করতে চাই। সম্মেলন সফল করতে আমরা সার্বিক প্রস্তুতি গ্রহণ করেছি। কাউন্সিলের মাধ্যমে নতুন কমিটি গঠিত হলে সাংগঠনিক কার্যক্রম আরো গতিশীল হবে এবং যারা সংগঠনের পেছনে শ্রম দিয়েছেন সেসব ক্লিন ইমেজ ও ত্যাগী নেতাকর্মীদের নতুন কমিটিতে স্থান পাওয়া উচিৎ। তবে বিতর্কিত, দুস্কৃতিকারী, দলছুট, অনুপ্রবেশকারী এবং দলের নীতি-আদর্শ পরিপন্থী লোকজন কমিটিতে যাতে না ঢুকতে পারে সে ব্যাপারে কেন্দ্রের কঠোর নির্দেশনা রয়েছে বলে তিনি জানান।

উপজেলা আওয়ামীলীগের সহ-সভাপতি বাবু ঈশ্বর চন্দ্র বর্মন বলেন, আগামী ৩০ মার্চ আমাদের ত্রি-বার্ষিক সম্মেলন অনুষ্ঠিত হবে। ইতি মধ্যে সামগ্রীক প্রস্তুতি ৭০% সম্পূর্ণ করতে পেরেছি। স্টেজের কাজও ৭০% হয়েছে। অন্যান্য বিষয়গুলি ৯০^% সম্পূর্ণ রয়েছে। নিয়ামতপুরে আওয়ামীলীগের একটি ঐতিহ্য রয়েছে। এখানে ইতি পূর্বে যে সমস্ত সম্মেলন হয়েছে তাতে কোন সমস্যা হয়নি। আশা রাখি এবারও কোন সমস্যা হবে না। আগামী দিনে আমরা এমন নেতৃত্ব চাই যারা দলের জন্য নিবেদিত প্রাণ। যারা দলের সাথে কোন বেইমানী করিনি।

নওগাঁ জেলা আওয়ামীলীগের অন্যতম সদস্য আবেদ হোসেন মিলন বলেন, ইতি মধ্যে সম্মেলনকে ঘিরে নেতা-কর্মীদের মাঝে ব্যাপক উৎসাহ উদ্দীপনা লক্ষ্য করা যাচ্ছে। আমি আশা করছি সকলের সহযোগিতায় সম্মেলনটি সফল ও সার্থক সম্মেলনে রূপান্তরিত হবে। আমি আশা করছি আগামীতে আওয়ামীলীগের নেতৃত্বে আসবে যারা সঠিকভাবে কর্মী মূল্যায়ন করতে পারবে, কর্মী বান্ধব নেতা থাকবে, যারা কর্মীদের পাশে সব সময় থাকবে এরকম নেতা নেতৃত্বে আসবে। সর্বপরি আমাদের মাননীয় খাদ্যমন্ত্রী বাবু সাধন চন্দ্র মজুমদার এমপি আছেন উনার নেতৃত্বেই আমরা ঐক্যবদ্ধভাবে কাজ করে যাচ্ছি, আমরা চাই উনি সঠিকভাবে নেতা নির্বাচিত করে আগামী দিনে এই উপজেলা আওয়ামীলীগকে একটি কর্মী বান্ধ ও কর্মী প্রিয় সংগঠনে পরিনত করবেন।

উপজেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক আলহাজ্ব আবুল কালাম আজাদ বলেন, ইতি মধ্যে সম্মেলনের সকল প্রস্তুতি সুসম্পন্ন হয়েছে। আগামী সম্মেলনে নজির বিহীন জনসমাবেশ ঘটবে, জনসমুদ্রে পরিনত হবে। আমরা চাইবো আগামী দিনে সঠিক নেতৃত্ব যাতে দিতে পারে সেই রকম নেতাদের পদায়ন করবেন এ ব্যাপারে আমরা শতভাগ আশা বাদী।

উপজেলা আওয়ামীলীগের যুগ্ন সাধারণ সম্পাদক ও উপজেলা চেয়ারম্যান ফরিদ আহমেদ বলেন, আগামী সম্মেলনকে ঘিরে ঈদের আমেজে পড়েছে উপজেলাবাসী। একটি সাজ সাজ রব উঠেছে। এই কাউন্সিল একটি গঠনমূলক কাউন্সিল হোক এবং তরুন নেতৃত্ব উঠে আসুক এই প্রত্যাশা।
উপজেলা আওয়ামীলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক আলহাজ্ব আব্দুর রহমান বলেন, আগামী সম্মেলন সুষ্ঠু ও সুন্দরভাবে হবে ইনশাল্লাহ। নওগাঁ জেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক ও খাদ্যমন্ত্রী সাধন চন্দ্র মজুমদার এমপি একটি সুন্দর কমিটি উপহার দিবেন এবং সেটি আমরা সকলে মেনে নিয়ে ঐক্যবদ্ধভাবে কাজ করবে এই আশা করছি।

নিয়ামতপুর সদর ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক জাহিদ হাসান বিপ্লব বলেন, আগামীর সম্মেলন অত্যান্ত উৎসবমূখর পরিবেশে অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে। যেহেতু আমাদের উপজেলা আওয়ামীলীগে সুসংগঠিত এবং নিয়মের মধ্যে পরিচালিত হয়। আমরা আশাবাদী এবারে সম্মেলনে যারা কমিটিতে আসবে যারা দলের জন্য কাজ করে দলের জন্য নিবেদিত প্রাণ তারাই কমিটিতে জায়গা পাবে।

এ বিষয়ে নাম প্রকাশ না করার শর্তে উপজেলা ও ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের একাধীক নেতা বলেন, তৃণমূল আওয়ামী লীগের কর্মী-সমর্থকরা চায় যোগ্য নেতৃত্ব। যে দলের দূর দিনে দলে হাল ধরে রেখেছিলেন। শীর্ষ পদগুলোতে এমন কাউকে বসানো ঠিক হবে না যার দ্বারা দলেও ঐক্য বিনষ্ট হয়। দলের ক্ষতি হয়।

 

Spread the love
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

By Editor

Leave a Reply