ঢাকা ১০:৪৮ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ১২ জুলাই ২০২৪, ২৮ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
সংবাদ শিরোনাম ::
বগুড়ার সান্তাহারে ৭২ হাজার টাকার জাল নোটসহ একজন গ্রেপ্তার জেলা যুবলীগের আয়োজনে ইফতার বিতরণ আদমদীঘিতে স্বামী স্ত্রীকে হত্যার উদ্দেশ্যে মারপিট মামলায় আরো দুইজন গ্রেফতার আদমদীঘিতে ট্রাকের ধাক্কায় একজন নিহত সিরাজদিখানে স্মার্ট বাংলাদেশ বাস্তবায়নে শিক্ষকদের করণীয় শীর্ষক মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত ধুনট থিয়েটারের আয়োজনে ইফতার মাহফিল অনুষ্ঠিত বগুড়ায় ঔষধ বাজারে সয়লাব বিক্রি নিষিদ্ধ ফিজিশিয়ান স্যাম্পলে সিরাজগঞ্জে বিশ্ব নাট্য দিবস পালিত মনন সাহিত্য সংগঠনের পাক্ষিক অধিবেশন এবং ইফতার মাহফিল অনুষ্ঠিত বগুড়ায় সিএনজি চালিত গাড়ির সিলিন্ডার রি-টেস্টিং শতভাগ নিশ্চিত করা সময়েরদাবী গোমস্তাপুরে যথাযোগ্য মর্যাদায় মহান স্বাধীনতা ও জাতীয় দিবস উদযাপিত বগুড়ায় ধর্ষণের ঘটনা ধামা চাপা দিতে তামিমকে হত্যা করা হয়েছিলো বগুড়ায় তুচ্ছ ঘটনায় একজন ছুরিকাঘাত বাজার এলাকায় উত্তেজনা হলে ইউএনও ও অতিরিক্ত পুলিশ সুপার এসে পরিস্থিতি শান্ত করেন। নওগাঁয় প্রভাবশাী ক্ষমতাবলে দীর্ঘ ৩ মাস ধরে গৃহবন্দী পরিবার নওগাঁয় ভূমি অফিসে অভিযান দালাল চক্রের সদস্যকে অর্থদণ্ড নওগাঁর বিভিন্ন দোকানে ভ্রাম্যমাণ আদালতের অভিযান ব্যবসায়ীকে জরিমানা বগুড়ায় ট্রাক ও অটোরিক্সার মুখোমুখি সংঘর্ষে একই পরিবারের ৩ জনসহ নিহত ৪ আহত ২ আদমদীঘিতে শ্বাশুড়ীকে খুনের মামলায় জামাই প্রেফতার নওগাঁয় মাদক ও অসামাজিক কাজ বন্ধের মানববন্ধন টাঙ্গাইলের মধুপুরে কবর থেকে ৫টি কঙ্কাল চুরি সানোড়া ইউপি’র উপ নির্বাচনে প্রতীক পেলেন ছয় চেয়ারম্যান প্রার্থী

নওগাঁশ সবজি চাষ করে স্বাবলম্বী সালেমা খাতুন

নওগাঁ প্রতিনিধি
  • আপডেট সময় : ০১:২৮:৫৯ অপরাহ্ন, বুধবার, ২৬ জুন ২০২৪ ৪২ বার পড়া হয়েছে

 

নওগাঁর ধামইরহাটে সবজি চাষ করে স্বাবলম্বী হয়েছেন সালেমা খাতুন নামের এক গৃহবধূ। অভাব-অনটনের সংসারে হাল ধরতে যখন কিছু একটা অবলম্বন খুঁজছিলেন তখনই প্রশিক্ষণ ও আর্থিক সহায়তা পেয়ে সবজি চাষে মনোযোগী হন সালেমা। বর্তমানে তাঁর সংসারে অভাব-অনটন নেই বললেই চলে।উপজেলার আলমপুর ইউনিয়নের চকসুবইল গ্রামের গৃহবধূ সালেমা খাতুন। মাত্র ১০ বছর বয়সে তাঁকে বিয়ের পিঁড়িতে বসতে হয়। ওই গ্রামের রেজুয়ান হোসেনের স্ত্রী সালেমার বর্তমান বয়স ৩৯ বছর। স্বামী, এক ছেলে ও এক মেয়ে নিয়ে সালেমার ছোট পরিবার। পরিবারে স্বামী একমাত্র উপার্জনক্ষম ব্যক্তি। সম্পত্তি বলে বসতবাড়ির একটি ঘর ছাড়া আর কিছুই নেই। স্বামী অন্যের জমি বর্গা চাষ করেন। তাঁর সামান্য আয় দিয়ে সংসার চলে না। অভাব-অনটন যেন তাঁদের নিত্যদিনের সঙ্গী।
অভাবের সংসারে আর্থিক সহায়তা করার ইচ্ছা থাকলেও সঠিক সহযোগিতার অভাবে তা হয়ে উঠছিল না। হঠাৎ পরিচয় হয় সিডাব্লিউএফডির মঙ্গলবাড়ী ধামইরহাট শাখার আগামীর পথে কর্মসূচির সমন্বয়কারী রেহেনা পারভীনের সঙ্গে। তাঁকে আগামীর পথে কর্মসূচির চন্দ্র মল্লিকা দলে অন্তর্ভুক্ত করা হয়। এ কর্মসূচির আলোকে নারী ও কিশোরীদের অর্থনৈতিক ক্ষমতায়নের লক্ষ্যে আয়মূলক কাজের জন্য তাদের আর্থিকভাবে সহায়তা করা হয়। অর্থনৈতিকভাবে ক্ষমতায়নের লক্ষ্যে তাদের বিভিন্ন বিষয়ে প্রশিক্ষণ দেওয়া হয়। প্রশিক্ষণ শেষে সালেমার হাতে আগামীর পথে কর্মসূচির পক্ষ থেকে ৩০ হাজার টাকা দেওয়া হয়। সবজি বিক্রি করে টাকা ফেরত দেওয়ার শর্তে দুই দফায় ৩০ হাজার টাকা হাতে তুলে দেওয়া হয়। টাকা পেয়েই সালেমা জীবনযুদ্ধে নেমে পড়েন। প্রথম বছরেই করল্লা চাষ করে বাজিমাত। সালেমা খাতুন জানান আগামীর পথে কর্মসূচিতে যোগদানের পরে দুই দফায় সবজি চাষের জন্য ৩০ হাজার টাকা দিয়েছে। টাকা পেয়ে প্রথমে বাড়ির পাশে সাড়ে ১২ শতক জমি বর্গা নিয়ে করল্লা চাষ করি। করল্লা বিক্রি করে খরচ বাদে আয় হয় ২৫ হাজার টাকা। এরপর মরিচ চাষ করি। মরিচ চাষে সফলতা পাওয়ার পর এবার এক একর জমি বর্গা নিয়ে আলু চাষ করেছি। আলু বিক্রি করে খরচ বাদে লাভ হয় দেড় লাখ টাকা।

নিউজটি শেয়ার করুন

আপলোডকারীর তথ্য
ads

নওগাঁশ সবজি চাষ করে স্বাবলম্বী সালেমা খাতুন

আপডেট সময় : ০১:২৮:৫৯ অপরাহ্ন, বুধবার, ২৬ জুন ২০২৪

 

নওগাঁর ধামইরহাটে সবজি চাষ করে স্বাবলম্বী হয়েছেন সালেমা খাতুন নামের এক গৃহবধূ। অভাব-অনটনের সংসারে হাল ধরতে যখন কিছু একটা অবলম্বন খুঁজছিলেন তখনই প্রশিক্ষণ ও আর্থিক সহায়তা পেয়ে সবজি চাষে মনোযোগী হন সালেমা। বর্তমানে তাঁর সংসারে অভাব-অনটন নেই বললেই চলে।উপজেলার আলমপুর ইউনিয়নের চকসুবইল গ্রামের গৃহবধূ সালেমা খাতুন। মাত্র ১০ বছর বয়সে তাঁকে বিয়ের পিঁড়িতে বসতে হয়। ওই গ্রামের রেজুয়ান হোসেনের স্ত্রী সালেমার বর্তমান বয়স ৩৯ বছর। স্বামী, এক ছেলে ও এক মেয়ে নিয়ে সালেমার ছোট পরিবার। পরিবারে স্বামী একমাত্র উপার্জনক্ষম ব্যক্তি। সম্পত্তি বলে বসতবাড়ির একটি ঘর ছাড়া আর কিছুই নেই। স্বামী অন্যের জমি বর্গা চাষ করেন। তাঁর সামান্য আয় দিয়ে সংসার চলে না। অভাব-অনটন যেন তাঁদের নিত্যদিনের সঙ্গী।
অভাবের সংসারে আর্থিক সহায়তা করার ইচ্ছা থাকলেও সঠিক সহযোগিতার অভাবে তা হয়ে উঠছিল না। হঠাৎ পরিচয় হয় সিডাব্লিউএফডির মঙ্গলবাড়ী ধামইরহাট শাখার আগামীর পথে কর্মসূচির সমন্বয়কারী রেহেনা পারভীনের সঙ্গে। তাঁকে আগামীর পথে কর্মসূচির চন্দ্র মল্লিকা দলে অন্তর্ভুক্ত করা হয়। এ কর্মসূচির আলোকে নারী ও কিশোরীদের অর্থনৈতিক ক্ষমতায়নের লক্ষ্যে আয়মূলক কাজের জন্য তাদের আর্থিকভাবে সহায়তা করা হয়। অর্থনৈতিকভাবে ক্ষমতায়নের লক্ষ্যে তাদের বিভিন্ন বিষয়ে প্রশিক্ষণ দেওয়া হয়। প্রশিক্ষণ শেষে সালেমার হাতে আগামীর পথে কর্মসূচির পক্ষ থেকে ৩০ হাজার টাকা দেওয়া হয়। সবজি বিক্রি করে টাকা ফেরত দেওয়ার শর্তে দুই দফায় ৩০ হাজার টাকা হাতে তুলে দেওয়া হয়। টাকা পেয়েই সালেমা জীবনযুদ্ধে নেমে পড়েন। প্রথম বছরেই করল্লা চাষ করে বাজিমাত। সালেমা খাতুন জানান আগামীর পথে কর্মসূচিতে যোগদানের পরে দুই দফায় সবজি চাষের জন্য ৩০ হাজার টাকা দিয়েছে। টাকা পেয়ে প্রথমে বাড়ির পাশে সাড়ে ১২ শতক জমি বর্গা নিয়ে করল্লা চাষ করি। করল্লা বিক্রি করে খরচ বাদে আয় হয় ২৫ হাজার টাকা। এরপর মরিচ চাষ করি। মরিচ চাষে সফলতা পাওয়ার পর এবার এক একর জমি বর্গা নিয়ে আলু চাষ করেছি। আলু বিক্রি করে খরচ বাদে লাভ হয় দেড় লাখ টাকা।