ঢাকা ১০:৩৩ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ১২ জুলাই ২০২৪, ২৮ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
সংবাদ শিরোনাম ::
বগুড়ার সান্তাহারে ৭২ হাজার টাকার জাল নোটসহ একজন গ্রেপ্তার জেলা যুবলীগের আয়োজনে ইফতার বিতরণ আদমদীঘিতে স্বামী স্ত্রীকে হত্যার উদ্দেশ্যে মারপিট মামলায় আরো দুইজন গ্রেফতার আদমদীঘিতে ট্রাকের ধাক্কায় একজন নিহত সিরাজদিখানে স্মার্ট বাংলাদেশ বাস্তবায়নে শিক্ষকদের করণীয় শীর্ষক মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত ধুনট থিয়েটারের আয়োজনে ইফতার মাহফিল অনুষ্ঠিত বগুড়ায় ঔষধ বাজারে সয়লাব বিক্রি নিষিদ্ধ ফিজিশিয়ান স্যাম্পলে সিরাজগঞ্জে বিশ্ব নাট্য দিবস পালিত মনন সাহিত্য সংগঠনের পাক্ষিক অধিবেশন এবং ইফতার মাহফিল অনুষ্ঠিত বগুড়ায় সিএনজি চালিত গাড়ির সিলিন্ডার রি-টেস্টিং শতভাগ নিশ্চিত করা সময়েরদাবী গোমস্তাপুরে যথাযোগ্য মর্যাদায় মহান স্বাধীনতা ও জাতীয় দিবস উদযাপিত বগুড়ায় ধর্ষণের ঘটনা ধামা চাপা দিতে তামিমকে হত্যা করা হয়েছিলো বগুড়ায় তুচ্ছ ঘটনায় একজন ছুরিকাঘাত বাজার এলাকায় উত্তেজনা হলে ইউএনও ও অতিরিক্ত পুলিশ সুপার এসে পরিস্থিতি শান্ত করেন। নওগাঁয় প্রভাবশাী ক্ষমতাবলে দীর্ঘ ৩ মাস ধরে গৃহবন্দী পরিবার নওগাঁয় ভূমি অফিসে অভিযান দালাল চক্রের সদস্যকে অর্থদণ্ড নওগাঁর বিভিন্ন দোকানে ভ্রাম্যমাণ আদালতের অভিযান ব্যবসায়ীকে জরিমানা বগুড়ায় ট্রাক ও অটোরিক্সার মুখোমুখি সংঘর্ষে একই পরিবারের ৩ জনসহ নিহত ৪ আহত ২ আদমদীঘিতে শ্বাশুড়ীকে খুনের মামলায় জামাই প্রেফতার নওগাঁয় মাদক ও অসামাজিক কাজ বন্ধের মানববন্ধন টাঙ্গাইলের মধুপুরে কবর থেকে ৫টি কঙ্কাল চুরি সানোড়া ইউপি’র উপ নির্বাচনে প্রতীক পেলেন ছয় চেয়ারম্যান প্রার্থী

ধুনটে ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ কর্তৃক চতুর্থ শ্রেণীর কর্মচারীকে লাঞ্ছিতের অভিযোগ

ধনুট বগুড়া প্রতিনিধি:
  • আপডেট সময় : ০৮:৪৫:০১ অপরাহ্ন, বুধবার, ১২ জুন ২০২৪ ৩৩ বার পড়া হয়েছে

বগুড়া ধুনটে নাংলু এম,কে,এম ফাজিল (ডিগ্রী) মাদ্রাসার এক চতুর্থ শ্রেণীর কর্মচারী এম,এল,এস,এস পদের দাবিদার আফেলা খাতুনকে লাঞ্ছিত করার অভিযোগ উঠেছে ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ ফজলুল করিমের বিরুদ্ধে। বুধবার ১২ জুন সকাল ১০ টার দিকে উপজেলার নিমগাছি ইউনিয়নের নাংলু এম,কে,এম ফাজিল (ডিগ্রী) মাদ্রাসায় এ ঘটনা ঘটে।

ভুক্তভোগী ওই কর্মচারী জানান, গত ১৫ মে ২০১২ তারিখে নাংলু এম,কে,এম ফাজিল (ডিগ্রী) মাদ্রাসার এম,এল,এস,এস পদের নিয়োগপত্র প্রদান করে দায়িত্বভার গ্রহণ করে।ঘটনার দিন বুধবার সকালে চতুর্থ শ্রেণীর কর্মচারী আফেলা খাতুন নাংলু এম,কে,এম,ফাজিল (ডিগ্রী) মাদ্রাসায় এসে হাজিরা খাতায় সই করতে গেলে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ মোঃ ফজলুল করিম তার কাছ থেকে জোর করে হাজিরা খাতা কেড়ে নেয়। এবং চতুর্থ শ্রেণীর কর্মচারীকে বলেন এখানে চাকরি করতে হলে আমাকে আরোও অতিরিক্ত টাকা দিতে হবে বলেও দাবি করেন। তখন চতুর্থ শ্রেণি কর্মচারী টাকা দিতে অস্বীকার করলে তাকে অশ্লীল ভাষায় গালিগালাজ ও অপমান করে ঘাড় ধাক্কা দিয়ে প্রতিষ্ঠান থেকে বের করে দেন বলেও জানান চতুর্থ শ্রেণীর কর্মচারী দাবি করা আফেলা খাতুন।

এবিষয়ে প্রতিষ্ঠানের সভাপতি মাসুদ আলমের ব্যক্তিগত মোবাইল ফোনে যোগাযোগ করলে তিনি সংবাদ কর্মীদের জানান, নাংলু এম,কে,এম ফাজিল (ডিগ্রী) মাদ্রাসার চতুর্থ শ্রেণীর কর্মচারী দাবি করা আফেলা খাতুন তিনি নাংলু এম,কে,এম ফাজিল ডিগ্রী মাদ্রাসার চতুর্থ শ্রেণীর কোন কর্মচারী না। এবং তার চতুর্থ পর্যায়ের এম,এল,এস,এস পদের নিয়োগপত্রের কোন কাগজপত্র নেই। আমি দায়িত্ব গ্রহনের পর থেকে এই শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে এমন কোন কিছু জানতেও পারিনি।
ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ ফজলুল করিম বলেন, আফেলা খাতুন নাংলু এম কে এম ফাজিল ডিগ্রী মাদ্রাসার চতুর্থ শ্রেণীর কোন কর্মচারী না, তিনি আমার বিরুদ্ধে যে অভিযোগ করছেন তা মিথ্যা, বানোয়াট ও ভিত্তিহীন। যেহেতু তিনি আমার প্রতিষ্ঠানের কেউ না তার কাছ থেকে কোন টাকা চাওয়ার প্রশ্ন উঠে না।

১২ই জুন বুধবার দুপুর অনুমান ১২টার দিকে নাংলু এম কে এম ফাজিল ডিগ্রী মাদ্রাসায় সরজমিনে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের গিয়ে আফেলা খাতুনকে লাঞ্ছিত করার বিষয়টি জিজ্ঞাসা করলে সকল শিক্ষক বিষয়টি জানা নাই বলে জানান।

নিউজটি শেয়ার করুন

আপলোডকারীর তথ্য
ads

ধুনটে ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ কর্তৃক চতুর্থ শ্রেণীর কর্মচারীকে লাঞ্ছিতের অভিযোগ

আপডেট সময় : ০৮:৪৫:০১ অপরাহ্ন, বুধবার, ১২ জুন ২০২৪

বগুড়া ধুনটে নাংলু এম,কে,এম ফাজিল (ডিগ্রী) মাদ্রাসার এক চতুর্থ শ্রেণীর কর্মচারী এম,এল,এস,এস পদের দাবিদার আফেলা খাতুনকে লাঞ্ছিত করার অভিযোগ উঠেছে ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ ফজলুল করিমের বিরুদ্ধে। বুধবার ১২ জুন সকাল ১০ টার দিকে উপজেলার নিমগাছি ইউনিয়নের নাংলু এম,কে,এম ফাজিল (ডিগ্রী) মাদ্রাসায় এ ঘটনা ঘটে।

ভুক্তভোগী ওই কর্মচারী জানান, গত ১৫ মে ২০১২ তারিখে নাংলু এম,কে,এম ফাজিল (ডিগ্রী) মাদ্রাসার এম,এল,এস,এস পদের নিয়োগপত্র প্রদান করে দায়িত্বভার গ্রহণ করে।ঘটনার দিন বুধবার সকালে চতুর্থ শ্রেণীর কর্মচারী আফেলা খাতুন নাংলু এম,কে,এম,ফাজিল (ডিগ্রী) মাদ্রাসায় এসে হাজিরা খাতায় সই করতে গেলে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ মোঃ ফজলুল করিম তার কাছ থেকে জোর করে হাজিরা খাতা কেড়ে নেয়। এবং চতুর্থ শ্রেণীর কর্মচারীকে বলেন এখানে চাকরি করতে হলে আমাকে আরোও অতিরিক্ত টাকা দিতে হবে বলেও দাবি করেন। তখন চতুর্থ শ্রেণি কর্মচারী টাকা দিতে অস্বীকার করলে তাকে অশ্লীল ভাষায় গালিগালাজ ও অপমান করে ঘাড় ধাক্কা দিয়ে প্রতিষ্ঠান থেকে বের করে দেন বলেও জানান চতুর্থ শ্রেণীর কর্মচারী দাবি করা আফেলা খাতুন।

এবিষয়ে প্রতিষ্ঠানের সভাপতি মাসুদ আলমের ব্যক্তিগত মোবাইল ফোনে যোগাযোগ করলে তিনি সংবাদ কর্মীদের জানান, নাংলু এম,কে,এম ফাজিল (ডিগ্রী) মাদ্রাসার চতুর্থ শ্রেণীর কর্মচারী দাবি করা আফেলা খাতুন তিনি নাংলু এম,কে,এম ফাজিল ডিগ্রী মাদ্রাসার চতুর্থ শ্রেণীর কোন কর্মচারী না। এবং তার চতুর্থ পর্যায়ের এম,এল,এস,এস পদের নিয়োগপত্রের কোন কাগজপত্র নেই। আমি দায়িত্ব গ্রহনের পর থেকে এই শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে এমন কোন কিছু জানতেও পারিনি।
ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ ফজলুল করিম বলেন, আফেলা খাতুন নাংলু এম কে এম ফাজিল ডিগ্রী মাদ্রাসার চতুর্থ শ্রেণীর কোন কর্মচারী না, তিনি আমার বিরুদ্ধে যে অভিযোগ করছেন তা মিথ্যা, বানোয়াট ও ভিত্তিহীন। যেহেতু তিনি আমার প্রতিষ্ঠানের কেউ না তার কাছ থেকে কোন টাকা চাওয়ার প্রশ্ন উঠে না।

১২ই জুন বুধবার দুপুর অনুমান ১২টার দিকে নাংলু এম কে এম ফাজিল ডিগ্রী মাদ্রাসায় সরজমিনে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের গিয়ে আফেলা খাতুনকে লাঞ্ছিত করার বিষয়টি জিজ্ঞাসা করলে সকল শিক্ষক বিষয়টি জানা নাই বলে জানান।